শিরোনাম :
নরেন্দ্র মোদি পূণরায় ক্ষমতায় এলে ৬ মাসের মধ্যে কাশ্মিরকে ভারতের অংশ করা হবে সিরাজগঞ্জে চলতি বছরই সেতু দিয়ে চলবে ট্রেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত দিঘলিয়ায় মহি মল্লিকের নির্বাচনী নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে পুলিশী হয়রানীর অভিযোগ  নওগাঁয় গ্রামীন ব্যাংকের মত বিনিময় সভা-অনুষ্ঠিত  আশুলিয়ার শিমুলিয়ায় ভূমিদস্যুদের দখলে অসহায় মাসুদের জমি  আপনি বাংলাদেশ ব্যাংকে ঢুকবেন কেন সাংবাদিকেদের প্রশ্ন ওবায়দুল কাদেরের ইসরাইল হেরে যাচ্ছে: সাবেক গোয়েন্দা উপ-প্রধান শ্রীবরদীতে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার আশুলিয়ায় চায়না আদিবাসী নারী পাচার চক্রের বিরুদ্ধে মানববন্ধন
ধর্মীয় ও আধুনিক শিক্ষার অনন্য দৃষ্টান্ত মাদরাসাতুল ইহসান আল-ইসলামীয়া

ধর্মীয় ও আধুনিক শিক্ষার অনন্য দৃষ্টান্ত মাদরাসাতুল ইহসান আল-ইসলামীয়া

আলমগির হোসেন বাদশা।

হিফজুল কুরআনের পাশাপাশি আধুনিক শিক্ষায় পাঠদানের মাধ্যমে সু-শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিচ্ছে “মাদরাসাতুল ইহসান আল-ইসলামীয়া” মাদরাসা। প্রতিষ্ঠার মাত্র এক বছরেই দ্বীনি এ প্রতিষ্ঠানটি ছাত্র ও অভিভাবকদের হৃদয় কেড়ে নিতে সক্ষম হয়েছে। অত্যন্ত নিরিবিলি, মনোরম ও শিক্ষাবান্ধব পরিবেশে চলছে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষাদান কার্যক্রম। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হাফেজ ও বিশিষ্ট শিক্ষকদের নিবিড় যত্ন ও পাঠদানের ফলে এরই মধ্যে হিফজুল কুরআন ও আধুনিক শিক্ষায় প্রতিষ্ঠানটি পরিচিতির পাশাপাশি অনেক প্রশংসা কুড়িয়েছে।

হিফজুল কুরআনের পাশাপাশি আধুনিক শিক্ষার সমন্বয় এই স্লোগানকে সামনে রেখে শিশুদের ইলম এবং আমল এর সমন্বয় সাধন ও আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষে ২০১৮ সালে মাওলানা মোঃ সিবগাতুল্লাহ জামি রাজধানীর দারুসসালাম থানাধীন কল্যানপুর নতুন বাজার সংলগ্ন এলাকায় একটি বাসা ভাড়া নিয়ে “মাদরাসাতুল ইহসান আল-ইসলামীয়া” নামে একটি আধুনিক দ্বীনি প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন। সভাপতি তাহার বাবা মাওলানা আবদুল সাত্তার সাহেব।
 
উক্ত মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মাওলানা মোঃ সিবগাতুল্লাহ জামি বলেন, শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড। ঘুণেধরা এ সমাজকে পরিবর্তন করতে হলে ইসলামী জ্ঞানের পাশাপাশি আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। এ দিকটি সামনে রেখেই এখানে প্রতিটি শিশুকে গড়ে তোলার সর্বাত্মক চেষ্টা করা হয়। একটি মুসলিম শিশুকে মহাগ্রন্থ আল কুরআন হিফজের পাশাপাশি দেশের একজন সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলাই আমাদের লক্ষ্য। ছাত্রদের সুপ্ত প্রতিভা বিকাশের জন্য এখানে আয়োজন করা হয়েছে বিভিন্ন ধরণের সহশিক্ষা কার্যক্রমও। আমরা অত্যন্ত দক্ষ, আন্তর্জাতিক মানের হাফেজ ও বিশিষ্ট শিক্ষকদের নিয়ে মাদরাসাটি পরিচালনা করছি। তিনি আরও জানান, কুরআন ও সুন্নাহর অনুসরনের মাধ্যমে আল্লাহভীরু, সৎ ও দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলতেই আমরা এ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে  কার্যক্রম চালাচ্ছি।

সরেজমিনে প্রতিষ্ঠানটিতে গিয়ে দেখা যায়, এখানে এবতেদায়ী, নূরানী, হেফজ, কিতাব খানায় শিক্ষা ও পলিটেকনিক্যাল শিক্ষা প্রদানের ব্যবস্থা রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি সম্পূর্ন শিততাপ নিয়ন্ত্রীত এবং সিসি টিভি ক্যামেরার আওতাভূক্ত। খুবই নিরিবিলি ও মনোরম পরিবেশে চলছে মাদরাসার  কার্যক্রম। মূল সড়ক থেকে একটু দূরে থাকার কারণে গাড়ির সাউন্ড সৃষ্ট কোনও ধরণের শব্দ এখানে আসেনা। ফলে প্রতিটা শিশু মনোযোগ নিয়ে অধ্যবসায়ে মনোনিবেশ করতে পারে।
প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যসূচি একেবারে যুগোপযোগী। এখানে শিশুর শিক্ষাগ্রহণ ক্ষমতার সাথে সঙ্গতি রেখে সাজানো হয়েছে পাঠ কার্যক্রম। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে উচ্চশিক্ষাসহ সর্বক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার উপযুক্ত করে শিক্ষার্থীদের গড়ে তোলার প্রত্যয়ে এ মাদরাসাটি অনুসরণ করছে ইংরেজি মাধ্যমে বাংলাদেশী (ন্যাশনাল) কারিকুলাম। একটি সুপরিকল্পিত ও মানসম্পন্ন কারিকুলাম ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের একে অন্যের অভিব্যক্তি, জ্ঞান, যোগ্যতা ও চিন্তা-পরিকল্পনা এবং অনুভব সুস্পষ্টও দৃঢ়ভাবে প্রকাশের সহায়ক হবে। দেশের প্রাথমিক শিক্ষার সাথে সংগতি রেখে পাঠ্যসূচি এমনভাবে ঢেলে সাজানো হয়েছে যাতে শিক্ষার্থী হিফজুল কুরআনের পাশাপাশি শিক্ষাবোর্ডের অনুমোদিত সিলেবাসও শেষ করতে পারে।

আরও জানা গেছে, মাদরাসা’য় প্রথাগত পদ্ধতিতে শুধু মুখস্থ বিদ্যা নয় বরং অনুধাবন করার ক্ষমতা সৃষ্টির মাধ্যমে পাঠদান করানো হয়। এখানে শিক্ষকদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে পুরোপুরি আরবী ও আধুনিক শিক্ষার পরিবেশ তৈরি করা হয়। পরিকল্পনা অনুযায়ী শিক্ষা উপকরণ ও কার্যকর পাঠদান করা হয়। পিছিয়ে পড়া ও অমনোযোগী শিক্ষার্থীদের প্রতি বিশেষ যত্ন নেয়া হয়। পরীক্ষা ভীতি দূর করার জন্য  ধারাবাহিক মূল্যায়ন করা হয়। শিক্ষার মান উন্নয়নে অভিভাবক-শিক্ষক মতবিনিময় করা হয়। এখানে  স্বল্প সময়ে হিফজ সম্পন্ন করানো হয়। হিফজের সাথে সাথে ১ম শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত ক্লাসভিত্তিক পড়ানো হচ্ছে। রয়েছে হিফজের সাথে সমাপনী পরীক্ষার ব্যবস্থা।

শিক্ষার্থীদের বুদ্ধি, মেধা, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিভা বিকাশের জন্য মাদরাসাটির বাড়তি উদ্যোগ খুবই প্রশংসার দাবি রাখে। মাদরাসাটি আগামী জাতিগঠনের ক্ষেত্রে অবিস্মরণীয় ভূমিকা রাখবে। সবাই এই মাদরাসাটির জন্য দোয়া করবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত