শিরোনাম :
নরেন্দ্র মোদি পূণরায় ক্ষমতায় এলে ৬ মাসের মধ্যে কাশ্মিরকে ভারতের অংশ করা হবে সিরাজগঞ্জে চলতি বছরই সেতু দিয়ে চলবে ট্রেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত দিঘলিয়ায় মহি মল্লিকের নির্বাচনী নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে পুলিশী হয়রানীর অভিযোগ  নওগাঁয় গ্রামীন ব্যাংকের মত বিনিময় সভা-অনুষ্ঠিত  আশুলিয়ার শিমুলিয়ায় ভূমিদস্যুদের দখলে অসহায় মাসুদের জমি  আপনি বাংলাদেশ ব্যাংকে ঢুকবেন কেন সাংবাদিকেদের প্রশ্ন ওবায়দুল কাদেরের ইসরাইল হেরে যাচ্ছে: সাবেক গোয়েন্দা উপ-প্রধান শ্রীবরদীতে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার আশুলিয়ায় চায়না আদিবাসী নারী পাচার চক্রের বিরুদ্ধে মানববন্ধন
নওগাঁয় শুঁটকি মাছ তৈরীতে ব্যস্ত ব্যবসায়ীরা

নওগাঁয় শুঁটকি মাছ তৈরীতে ব্যস্ত ব্যবসায়ীরা

নওগাঁ প্রতিনিধিঃ বাজারে মিলছে প্রচুর দেশীয় প্রজাতির মাছ। নদী, নালা, খাল ও বিলের পানি কমতে থাকায় এ মাছগুলোর দেখা মিলছে। আর এ মাছের উপর নির্ভর করে প্রতি বছর এক শ্রেনীর মানুষ জীবন জীবিকার জন্য উৎস খুঁজে নেন। তারা এ মাছগুলো শুঁটকি তৈরী করে থাকেন। শুঁটকি ব্যবসা করে সারাবছর পরিবারের ভরনপোষণ নিশ্চিত করে থাকে। জানাগেছে, বছরের তিন থেকে চার মাস শুঁটকির মৌসুম। নভেম্বর থেকে শুরু হয়ে চলে ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত। নওগাঁর মান্দা উপজেলায় অসংখ্য নদী, নালা, খাল ও বিল রয়েছে। আর এসব বিলে প্রচুর দেশীয় মাছ পাওয়া যায়। শুঁটকি তৈরীতে বিশেষ করে পুঁটি, সাঁটি, খলিসান, গুঁচি, সইল মাছ ব্যবহৃত হয়। স্থানীয় মৎস্যজীবিরা এসব মাছ শিকার করে হাটে-বাজারে বিক্রি করে থাকেন। স্বল্প দামে শুঁটকি ব্যবসায়ীরা এসব মাছ কিনে থাকেন। নওগাঁ সদর, মান্দা, আত্রাই ও রানীনগর উপজেলায় শুঁটকি তৈরী করা হয়। জেলায় প্রায় আড়াই মানুষ শুঁটকি ব্যবসা ও নিজেদের খাবারের জন্য তৈরী শুঁটকির সাথে সম্পৃক্ত। এসব মাছ থেকে শুঁটকি তৈরী করছেন নুহু মন্ডল। তিনি উপজেলার ভারশোঁ ইউনিয়নের চৌবাড়িয়া হাটের পাশে শীব নদীর তীরে অস্থায়ীভাবে শুঁটকির খামার করেছেন। গত তিন বছর থেকে তিনি এখানে শুঁটকি তৈরী করে আসছেন। তিনি এসেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুর কাজিগ্রাম থেকে। এখানে ১০৬ টি বাঁশের মাচায় শুঁটকি তৈরী করছেন। মাছ শুকানোর সময় যেনো দূর্গন্ধে মানুষ বিব্রত না হয় এজন্য তিনি এ স্থানটি নির্বাচন করেছেন। মৎস্যজীবিরা প্রকার ভেদে মাছ ৯০-১২০ টাকা কেজি দরে খামারে মাছ দিয়ে যান। এছাড়া বিভিন্ন হাট-বাজার থেকে মাছ সংগ্রহ করে থাকেন। এরপর মাছগুলো সংগ্রহ করার পর প্রথমে কুটে(বেছে) নেয়া হয়। এরপর পানিতে পরিস্কার করে লবন মেখে চাটাইয়ের উপর রোদে শুকানো হয়। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে এসব শুঁটকি মাছ উৎপাদন করতে সময় লাগে ৩ থেকে ৪ দিন। শুঁটকি তৈরী করে সারা বছরই মাছ সংরক্ষন করা হয়। এক কেজি পুঁটি মাছ থেকে আধা কেজি শুঁটকি মাছ উৎপাদন করা যায়। যার প্রতি শুঁটকি মাছ বিক্রি হয়ে থাকে ২০০-৩০০ টাকা কেজি। প্রতি সপ্তাহে এ খামার থেকে প্রায় ৫০ থেকে ৬০ মন বা তার চেয়ে একটু-আধটু কমবেশি শুঁটকি মাছ উৎপাদন হয়ে থাকে। এরপর নীলফামারী, কুড়িগ্রাম, দিনাজুপর ও সৈয়দপুরের মেসার্স শেখ এন্টার প্রাইজ বা অন্যান্য আড়ৎ-এ শুঁটকি মাছ সরবরাহ করা হয়। তবে বিলের মাছের উপর শুঁটকি মাছের ব্যবসা নির্ভর করে। শুঁটকি ব্যবসায়ী নুহু মন্ডল বলেন, প্রায় ২০-২২ বছর থেকে শুঁটকির ব্যবসা করে আসছেন। যে বছর কাঁচা মাছের দাম কম থাকে সে বছর লাভ একটু বেশি থাকে। আর যে বছর কাঁচা মাছের দাম বেশি হয় সে বছর একটু কম লাভ হয়। তবে বেশ পরিশ্রম করতে হয় এ ব্যবসায়। শুঁটকি তৈরীর পর নিজে মহাজনদের কাছে দিয়ে আসেন। শুঁটকি মৌসুমে সবখরচ বাদ দিয়ে প্রায় ৬০-৭০ হাজার টাকার মতো লাভ থাকে। আত্রাই উপজেলার ভর-তেঁতুলিয়া গ্রামের শুঁটকি ব্যবসায়ী আব্দুস ছালাম বলেন, দেশের বিভিন্ন স্থানে শুঁটকির চাহিদা আছে। প্রতিদিন ভোরে আত্রাই বাজার থেকে মাছ কিনে পরিস্কার করা হয়। এটা খুব কষ্টের কাজ। তবে লাভ ভালো হলে সব কষ্ট লাঘব হয়। এবার বন্যা হওয়ায় শুটকি মাছ কেনা-বেচা করে বেশ ভাল লাভ থাকবে বলে মনে করছেন তিনি। নওগাঁ জেলা মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা (জরীপ কর্মকর্তা অতিরিক্ত দায়িত্ব) অমল কুমার রায় বলেন, গত বছর জেলায় প্রায় ৫৫ মেট্রিকটন শুঁটকি উৎপাদন হয়েছিল। এবার খাল-বিলে ভাল মাছ রয়েছে। এ বছর শুঁটকির লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে আশাবাদী। এখন বাজার ভালো থাকলে ব্যবসায়ীরা লাভবান হবেন। জেলায় ২৫০ জন শুঁটকি ব্যবসায়ী ও সুফল ভোগী রয়েছে। এছাড়া শুঁটকি উৎপাদন ও প্রক্রিয়া জাতের উপর প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত