প্রতিশোধের ঘোষণার পর এবার লাল পতাকা উড়ালো ইরান

প্রতিশোধের ঘোষণার পর এবার লাল পতাকা উড়ালো ইরান

আলোকিত ডেস্কঃ যুদ্ধের লাল পতাকা উড়িয়েছে ইরান। ইরানি জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধের ঘোষণার পর কেনিয়ার মার্কিন ঘাঁটিতে হামলা করেছে আল শাবাব। এদিকে পারস্য উপসাগরে যুক্তরাজ্য দুটি যুদ্ধজাহাজে টহল দিচ্ছে। উত্তাপ বাড়ছে মধ্যপ্রাচ্যে। গতকাল জেনারেল সোলাইমানির মরদেহ ইরানে পৌঁছানোর পর বিমানবন্দর এলাকায় জনস্রোত নামে। উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে ইরানের ৫২ স্থানে নতুন করে হামলার হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভ। বিশ্ব মিডিয়া ও নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রের ওপর বদলা নিতে চায় ইরাকও। যে কোনো সময় মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধ বেঁধে যেতে পারে। গতকাল শোক অশ্রু আর রক্তের বদলা নেওয়ার শপথে জেনারেল সোলাইমানির মরদেহ গ্রহণ করেন ইরানিরা। এ সময় আহওয়াজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইরানের শীর্ষস্থানীয় শত শত সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। ইরানি পতাকায় মোড়া কফিন বাক্স বিমান থেকে নামানো হয়। সে সময় সোলাইমানির মরদেহকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। ইরানের বার্তা সংস্থা ইসনা জানায়, পরে জেনারেল সোলাইমানির মরদেহ আহভাজ শহরে আনা হয়। সেখানে আগে থেকেই জড়ো হয়েছিলেন লাখো মানুষ। তাদের হাতে ছিল জেনারেল কাসেম সোলাইমানির ছবি। এ সময় তারা বুক চাপড়ে মাতম করেন, তারা ‘আমেরিকা নিপাত যাক’ স্লোগান দেন। পার্স টুডে জানায়, কাসেম সোলাইমানির মরদেহ পৌঁছার পর খুজিস্তান প্রদেশের প্রধান শহর আহওয়াজে জনতার ঢল নামে। তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গোটা শহর পরিণত হয় জনসমুদ্রে। শোকার্ত জনতা খুব কাছ থেকে তাদের বীরের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করেন। জেনারেল সোলাইমানিকে বহনকারী গাড়িতে একবার হাত বুলিয়ে দিতে পারাকে পরম সৌভাগ্য বলে মনে করেন তারা। এ কারণে গাড়ির সামনে-পেছনে ছিল শুধুই মানুষ। আহওয়াজ থেকে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় ইরানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় মাশহাদ নগরীতে। সেখানেও জনতা তার প্রতি শ্রদ্ধা জানান। উড়ল যুদ্ধের লাল পতাকা : যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তুমুল উত্তেজনার মধ্যে মসজিদে যুদ্ধের প্রতীক ‘লাল পতাকা’ উড়িয়ে দিয়েছে ইরান। এই পতাকা বা ‘লাল ঝান্ডা’ উড়ানোর অর্থ ইরান যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত। মার্কিন বাহিনীর একপক্ষীয় হামলায় ইরানের বিপ্লবী গার্ডের কুদস বাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল কাসেম সোলাইমানি নিহত হওয়ার ঘটনায় তিন দিনের শোকের প্রথম দিন শনিবার এ লাল পতাকা উড়ানো হয়। শিয়াদের পবিত্র নগরী  কোমের প্রখ্যাত জামকারান মসজিদের মিনারে এই লাল ঝান্ডা উড়ানোর মুহূর্ত প্রচারিত হয় রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে। সোলাইমানি হত্যাকান্ডের ‘চরম প্রতিশোধ’ নেওয়া হবে বলে যুক্তরাষ্ট্রকে ইরানের হুমকির পর এই ‘লাল পতাকা’র প্রতীকী অর্থ বিপুল বলে জানাচ্ছেন সমরবিদরা। শিয়া সংস্কৃতিতে লাল পতাকার অর্থ- অন্যায়ভাবে রক্তক্ষরণ এবং যার রক্তক্ষরণ হয়েছে তার জন্য প্রতিশোধ নেওয়ার আহ্বান। ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোম নগরে এভাবে লাল পতাকা উড়ানো হলো। যুদ্ধ প্রস্তুতি : হামলার জন্য ইরানের টার্গেটে রয়েছে তেলআবিবসহ মার্কিনিদের ৩৫টি স্থান। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের টার্গেটে রয়েছে ইরানের ৫২টি স্থাপনা। যুদ্ধের এই দামামায় মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে বিমান ঘাঁটি, বন্দর ও অন্যান্য স্থাপনায় উচ্চ সতর্কতা নেওয়া হয়েছে। ইরানের চারদিকে যুক্তরাষ্ট্র আগে থেকেই সৈন্য সমাবেশ ঘটিয়ে রেখেছে। দেশটির পশ্চিমপ্রান্তে উত্তর থেকে দক্ষিণ বরাবর কমপক্ষে ১০টি দেশে যুক্তরাষ্ট্র দাবার ঘুঁটির মতো সেনাদের সাজিয়ে রেখেছে। যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভ : ইরানি জেনারেলকে হত্যার ঘটনায় গতকাল যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ট্রাম্পবিরোধী বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। বিক্ষোভকারীরা হোয়াইট হাউসের বাইরে এবং নিউইয়র্কের টাইমস স্কোয়ারে অবস্থান নেন। শিকাগো অঙ্গরাজ্যে ট্রাম্প টাওয়ারের কাছে ‘নো জাস্টিস, নো পিস’ স্লোগান দিতে দেখা গেছে প্রায় ২০০ বিক্ষোভকারীকে। তাদের হাতে বেশ কিছু প্লাকার্ডে লেখা ছিল, ‘ইরাকে বোমা হামলা বন্ধ কর এবং ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার কর’। কেনিয়ায় মার্কিন ঘাঁটিতে হামলা : জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধের ঘোষণার পরই কেনিয়ার উপকূলীয় লামু অঞ্চলে কেনীয় ও মার্কিন বাহিনীর একটি সামরিক ঘাঁটিতে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এক বিবৃতিতে সোমালিয়ার আল-শাবাব গোষ্ঠী এ হামলার দায় স্বীকার করেছে। ট্রাম্পের হুমকি : নতুন করে ইরানের ৫২ স্থানে খুব দ্রুত ভয়াবহ হামলার হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গতকাল এক টুইট বার্তায় ইরানকে হুমকি দিয়ে ট্রাম্প লিখেছেন, ‘হামলা হওয়ায় প্রত্যাঘাত। আর যেন হামলা না করে। না হলে তুমুল হামলা হবে। এমন হামলা করব, ভাবতেও পারবে না।’ তিনি বলেন, ‘ইরান যদি আমেরিকানদের ওপর বা যুক্তরাষ্ট্রের কোনো সম্পদ লক্ষ্য করে হামলা চালায় তবে তেহরানের ৫২ স্থানে ভয়াবহ হামলা চালানো হবে’। ইরানি সেনাপ্রধানের ভাষ্য : এর জবাবে ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের সেনাবাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল সাইয়্যেদ আবদুর রহিম মুসাভি বলেছেন, ‘আমেরিকা নিজের সন্ত্রাসী পদক্ষেপকে যৌক্তিক হিসেবে তুলে ধরতে ইরানের ৫২টি স্থানে হামলার হুমকি দিয়েছে।’ ট্রাম্পের জন্য দিতে হবে চরম মূল্য : ট্রাম্পের হুমকি ও ইরানি জেনারেলকে হত্যার জন্য যুক্তরাষ্ট্রসহ আমেরিকানদের চরম মূল্য দিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএর সাবেক পরিচালক মাইকেল মোরেল। তিনি বলেছেন, ‘এই হত্যাকান্ডের কঠোর জবাব দেবে ইরান। ফলে যুক্তরাষ্ট্রকে দিতে হবে চরম মূল্য।’ পারস্য উপসাগরে ব্রিটিশ যুদ্ধজাহাজ : যুক্তরাষ্ট্র-ইরান সংকটের তীব্রতা আঁচ করতে পেরে যুক্তরাজ্য পারস্য উপসাগরে দুটি যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন করেছে। মার্কিন ওয়েবসাইটে সাইবার হামলা : যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ডিপোজিটরি লাইব্রেরি প্রোগ্রাম নামের একটি ওয়েবসাইট হ্যাক করে ইরানি হ্যাকারদের একটি গ্রুপ। ইরাক ছাড়ছেন তেল কোম্পানির মার্কিন কর্মীরা : বাগদাদের মার্কিন দূতাবাসের এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের ইরাক ছাড়ার আহ্বানের পর ইরাক ছাড়ছেন তেল কোম্পানির মার্কিন কর্মীরা। মার্কিন সৈন্য হটাতে বলল ইরাকি পার্লামেন্ট : ইরাক থেকে মার্কিন বাহিনীর প্রত্যাহার চেয়ে ইরাকি পার্লামেন্ট একটি প্রস্তাব পাস করেছে। ইরানি কমান্ডার কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার দুই দিনের মাথায় গতকাল পার্লামেন্টের জরুরি অধিবেশনে এ প্রস্তাব পাস হলো। এর ফলে আমেরিকাকে ইরাক থেকে সেনা প্রত্যাহার করাতে আইনি অবস্থান তৈরি হলো।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত