শিরোনাম :
কেন্দুয়া কৈজানি নদীতে ঝাঁপ দেয়া হালিমের লাশ উদ্ধার খুলনায় ট্রাক-কাভার্ডভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষে চালক নিহত শাহজাদপুরে পিপিভি নারীকে চাকরিতে পূর্ণবহালের দাবীতে মানববন্ধন ও সমাবেশ  শেরপুরে বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তার বিচার দাবিতে মানববন্ধন সালথায় পেঁয়াজের আড়তে ভোক্তা অধিদপ্তরের তদারকি দিঘলিয়ায় সাবেক প্রেসিডেন্ট হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদের ৫ম মৃত্যু বার্ষিকী পালন মিরপুর বিআরটিএ কার্যালয়ে অভিযান ; ২ দালালের সাজা কেন্দুয়ায় ফুটবল প্রীতিম্যাচ অনুষ্ঠিত কেন্দুয়ায় বাবার বাড়ি পুড়িয়ে দিল ছেলে ধীরগতিতে কমছে যমুনার পানি বানভাসির মধ্যে বিশুদ্ধ পানিসহ তীব্র খাদ্য সংকট
বেগমগঞ্জের মাদক সম্রাট অদৃশ্য সুমন

বেগমগঞ্জের মাদক সম্রাট অদৃশ্য সুমন

হাসান : মাদক হচ্ছে সেই সর্বনাশী দ্রব্য যার ব্যবহারে নিমেষেই একটি পরিবার ধ্বংস করে একটি সমাজকে ভয়ংকর হুমকির দিকে ঠেলে দিতে পারে। সেই মাদক যদি হাত বাড়ালেই পাওয়া যায়, তাহলে সমাজ ব্যাবস্থার কি হবে?
সম্প্রতি নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ একাধিক গ্রামে ঘরে ঘরে পাওয়া যাচ্ছে মাদক। খুব সহজে এ সকল মাদক চলে যাচ্ছে যুব সমাজের হাতে। ফলে ধীরেধীরে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ছে যুব সমাজ। বাড়ছে খুন,রাহাজানি, চুরি, ছিনতাই সহ,বিভিন্ন ধরনের অপরাধ প্রবনতা।নামে- বে নামে জম্ম নিচ্ছে কিশোর গ্যাংয়ের মতো বিপদগামী যুবক।হাত বাড়ালেই পাওয়া যাচ্ছে গাঁজা, ইয়াবা সহ সর্বনাশা মাদক। বেগমগঞ্জের কেন্দুরবাগ,খালপাড়,তালুয়াচাঁদপুর,মিরওয়ারিশপুর সহ একাধিক স্থানে প্রকাশ্যে মাদক বিক্রির তথ্য উঠে আসে প্রতিবেদকের অনুসন্ধানে। জানা যায় কেন্দুরবাগ মাদক সাম্রাজ্যের মূলে রয়েছেন, মাদক সম্রাট অদৃশ্য সুমন।, চাচা জহির, সুমন সহ একাধিক মাদক ব্যাবসায়ি।
এ দিকে মাদকের মরন থাবা থেকে সমাজকে রক্ষা করতে প্রায় সময় অভিযান পরিচালনা করেন প্রশাসন।
পুলিশের তথ্য সুত্রে জানা যায় মাদক সম্রাট সুমনের বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে।
এ দিকে বেগমগঞ্জ মডেল থানার বিগত তিন মাসের ফিরিস্তি পর্যালোচনা করে দেখা গেছে বেগমগঞ্জ মডেল থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ৪৪ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছেন পুলিশ। প্রতিবেদককে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেগমগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ারুল ইসলাম।কথা বলি নোয়াখালী জেলা মাদক নিয়ন্ত্রন কর্মকর্তার সাথে।তিনি আজকের আলোকিত সকাল কে জানান মাদক সম্রাট সুমনের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা চলমান রয়েছে। এতো কিছুর পরও কোনো এক অদৃশ্য শক্তির চত্র ছায়ায় চালিয়ে যাচ্ছেন মাদক বানিজ্য।  একাধিকবার আইনের হাতে আটক হওয়ার পর ও ,আইনের ফাঁক ফোকর দিয়ে বেরিয়ে এসে বহাল তবিয়্যতে মাদক ব্যবসায়ীরা চালিয়ে যাচ্ছেন মাদক ব্যাবসা। আইনের ফাঁক ফোকরের পেছনের রহস্য উন্মোচন করতেই প্রতিবেদকের হাতে আসে অবাক করা কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য। বেরিয়ে আসে জেলা – উপজেলা পর্যায়ের কিছু জনপ্রতিনিধির নাম।যাদের অদৃশ্য ছত্রছায়ায় এই সকল মাদক ব্যবসায়ী একাধিক বার গ্রেফতার হওয়ার পর ও আইনের ফাঁক ফোকর দিয়ে বেরিয়ে এসে বহাল তবিয়্যতে চালিয়ে যাচ্ছে মাদকের রাজত্ব।
এ দিকে বাংলাদেশের সরকার প্রধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একাধিক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মাদকের বিরুদ্ধে জীরো ট্রলারেন্স ঘোষণা করার পর ও বাস্তবে তার ছিটেফোঁটাও দেখছে না বলে ক্ষোপ প্রকাশ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা এবং মাদকের ভয়াল থাবা থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের কঠোর প্রয়োগ করতে জোর দাবি জানান।
আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভূমিকা এবং জেলা উপজেলা পর্যায়ের জড়িতদের তথ্য তুলে ধরবো পরের পর্বে।
আসুন মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর প্রতিরোধ গড়ে তুলি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত