শিরোনাম :
কেন্দুয়া কৈজানি নদীতে ঝাঁপ দেয়া হালিমের লাশ উদ্ধার খুলনায় ট্রাক-কাভার্ডভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষে চালক নিহত শাহজাদপুরে পিপিভি নারীকে চাকরিতে পূর্ণবহালের দাবীতে মানববন্ধন ও সমাবেশ  শেরপুরে বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তার বিচার দাবিতে মানববন্ধন সালথায় পেঁয়াজের আড়তে ভোক্তা অধিদপ্তরের তদারকি দিঘলিয়ায় সাবেক প্রেসিডেন্ট হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদের ৫ম মৃত্যু বার্ষিকী পালন মিরপুর বিআরটিএ কার্যালয়ে অভিযান ; ২ দালালের সাজা কেন্দুয়ায় ফুটবল প্রীতিম্যাচ অনুষ্ঠিত কেন্দুয়ায় বাবার বাড়ি পুড়িয়ে দিল ছেলে ধীরগতিতে কমছে যমুনার পানি বানভাসির মধ্যে বিশুদ্ধ পানিসহ তীব্র খাদ্য সংকট
ভোলা ইলিশা জংশন বাজারে সংঘর্ষের ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন 

ভোলা ইলিশা জংশন বাজারে সংঘর্ষের ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন 

মমিনুল ইসলাম শিবলু:
ভোলা ইলিশা জংশন বাজারে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, হামলা, নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর ও মোটরসাইকেল পোড়ানোর ঘটনায়  সংবাদ সম্মেলন করেছে মোটরসাইকেল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুস।
শনিবার (০৪ মে) দুপুর ২টায় ভোলা প্রেসক্লাবে  এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
সম্মেলনে শুক্রবার ০৩ মে ভোলার ইলিশা জংশন বাজারে মোটরসাইকেলের সমর্থকদের উপর আনারস প্রতীকের সমর্থকদের হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে মোটরসাইকেল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুস বলেন, মনোনয়ন পত্র দাখিলের পর থেকেই আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর কর্মীরা বিভিন্ন সভা সমাবেশে প্রকাশ্যে আমার কর্মীদেরকে নানাভাবে হুমকী ধামকী দিয়ে আসছে। এমনকি ইউনিয়ন থেকে পৌরসভায় ঢুকতে না দেয়া  সহ আমার সমর্থীত এক ইউপি চেয়ারম্যানের হাত কেটে দেয়ারও হুমকী দেয়া হয়। এ সব ঘটনায় মিজানুর রহমান নামের একজন বাদি হয়ে ভোলা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। ঘটনার নেতৃত্বে থাকা আনারস প্রতীকের সমর্থক স্থানীয় মেম্বার সালাউদ্দিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি, ভোলা সদরে একটি অবাদ নিরপেক্ষ, সুষ্টু ও প্রভাবমুক্ত নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য প্রধানমন্ত্রী, সিইসি ও স্থানীয় প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করেছেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের ত্রান ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, ভোলা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলী নেওয়াজ পলাশ, রাজাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল হক মিঠু চৌধুরী এবং পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন ছোটন।
এদিকে মোটরসাইকেল প্রতীকের প্রার্থী সংবাদ সম্মেলনে দেয়া বক্তব্যকে মিথ্যা ও বানোয়াট বলে আখ্যায়িত করেছেন, আনাসর প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আলহাজ্ব মোশারেফ হোসেন। তিনি বলেন, ইলিশার ঘটনার সময় আমার কোনো লোক ছিলনা। ঘটনার পরে আমার সমর্থকরা রাস্তায় নেমে আসে। এখানে আমার কি করার আছে। তারা মিথ্যা প্রচারনা করে ভোটারদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। আমি চাই শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হোক।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় এমপি আলহাজ্ব তোফায়েল আহমেদ এর ভাতিজা, সদর উপজেলার দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইফতেখার আলম স্বপন জানান, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী আমার বড় ভাবীর নির্বাচনী প্রচারনায় সন্ধ্যার পরে আমি ওই এলাকায় যাই। এ সময় দু’পক্ষের সংঘর্ষ দেখে আমি স্থান ত্যাগ করি।
এ বিষয়ে ভোলা জেলা প্রশাসক আরিফুজ্জামান বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যায়  ইলিশায় দু পক্ষের একটি মারমূখী অবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল। ঘটনাস্থলে ম্যাজিস্ট্রেট পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।  আমরা খতিয়ে দেখছি। তবে আজ সকল প্রার্থীদের নিয়ে আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক সভা ছিল। আমরা স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছি, যিনি নির্বাচন আচরন বিধি লঙ্ঘন করবেন আমরা তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিব। এটার কোনো রকমের ব্যত্যয় ঘটবে না।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত