রমাগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি পদে আলোচনায় খায়রুল হাসান কাঞ্চন

রমাগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি পদে আলোচনায় খায়রুল হাসান কাঞ্চন

এম.ইউ.মাহিম: ভোলার লালমোহন উপজেলার রমাগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি পদে খায়রুল হাসান কাঞ্চনকে দেখতে চায় ইউনিয়নটির বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। তাঁর সমর্থনে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্টার-লিফলেট করে উপজেলা বিএনপির নীতিনির্ধারকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। লালমোহন উপজেলা বিএনপির সূত্রে জানা গেছে,কিছু দিন পূর্বে রমাগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি প্রবীণ বিএনপি নেতা শাজাহান মেম্বারের মৃত্যুুতে দলীয় গঠনতন্ত্র মোতাবেক পদ শূণ্য হয়

রমাগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির দলীয় নেতা-কর্মীদের সূত্রে জানা গেছে,মরহুম শাজাহান মেম্বারের বিকল্প হিসেবে দলীয় নেতা-কর্মীরা খায়রুল হাসান কাঞ্চনকে সমর্থন জানাচ্ছেন। তিনি বিএনপির দুুঃসময়ে নিপিড়িত কর্মীদের পাশে থেকে সব ধরণের সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। ক্লিন ইমেজ ও কর্মীবান্ধব নেতা হওয়ার কারণে তরুণ ও যুবসমাজের মাঝে রয়েছে তাঁর ব্যাপক জনপ্রিয়তা। বিগত সময়ে নেতা-কর্মীদের সুখে-দুখে পাশে দাঁড়িয়ে তাদের আস্থাভাজনে পরিণত হন। দক্ষ সংগঠক হিসেবেও তাঁর পরিচিতি রয়েছে।

খায়রুল হাসান কাঞ্চন ছাত্র জীবনেই জাতীয়তাবাদী দর্শনে বিশ্বাসী হয়ে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে ছাত্রদলের তৃণমূল কর্মী হিসেবে বিএনপির রাজনীতিতে যুক্ত হন। দুলারহাট আদর্শ কলেজের ছাত্রদলের আহবায়ক হিসেবে সফলতার সহিত দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে উপজেলা বিএনপির সহ-কোষাধ্যক্ষ ও ঢাকাস্থ লালমোহন থানা জাতীয়তাবাদী ফোরাম’র সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে একাধিক মামলা-হামলা হয়রানি সহ্য করে দলীয় নীতি আদর্শে এখনও অটল রয়েছেন। এছাড়াও তিনি জিয়া মঞ্চ ও জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম দলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। লালমোহনের পেশাজীবীদের সংগঠন লালমোহন ফাউন্ডেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ঢাকাস্থ ভোলা জেলা ঐক্য পরিষদের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করে সামাজিক দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়েছেন। সাংগঠনিকভাবে অভিজ্ঞ ও দক্ষ সংগঠক খায়রুল হাসান কাঞ্চনকে রমাগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপিতে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব প্রদান করা হলে নেতা-কর্মীরা উজ্জিবিত হবে বলে মনে করেন বিএনপির নেতৃস্থানীয়রা।

লালমোহন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নজরুল কাদের মার্শাল(হিমু) ও সাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল পঞ্চায়েত বলেন,রমাগঞ্জ ইউনিয়নের কমিটির ব্যাপারে আমাদের সঙ্গে এখন পর্যন্ত কোন আলোচনা হয়নি। মেজর অব.হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বীরবিক্রম এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবেন।

খায়রুল হাসান কাঞ্চন বলেন,দলের নেতা-কর্মীদের সমর্থন প্রচার-প্রচারণা আমি লক্ষ্য করেছি। আমি মেজর অব.হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বীরবিক্রমের নেতৃত্বের প্রতি আনুগত্যশীল হয়ে রাজনীতি করি। তিনি যদি আমাকে সভাপতি পদে মনোনীত করেন আমি বহু দলীয় গণতন্ত্রের প্রবর্তক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শ হৃদয়ে ধারন করে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে কাজ করব। আমি সাংগঠনিক দক্ষতা,দলে ত্যাগ ও শ্রম বিবেচনায় দুঃসময়ের পরিক্ষিত নেতা-কর্মীদের সমন্বয়ে রমাগঞ্জ ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডকে বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের কমিটির মাধ্যমে শক্তিশালী ঘাটিতে পরিনত করব।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত