শিরোনাম :
দিঘলিয়া উপজেলা শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী  নওগাঁয় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এর অভিযানে ৬কেজি গাঁজাসহ আটক-১ নাহিদুজ্জামান বাবুর স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি  সিরাজগঞ্জে গরু চুরিতে বাধা দেওয়ায় পিকআপের চাপায় গৃহবধু হত্যা,ডাকাত দলের ৪ পলাতক আসামী গ্রেফতার বড়াইগ্রামে পাটোয়ারী কোয়ালিটি এডুকেয়ার ইনস্টিটিউটে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা অনুষ্টিত পূর্বধলায় সরকারী চাকুরীজীবী হওয়া সত্বেও করেন সাংবাদিকতা খুলনায় মাসব্যাপী একুশে বইমেলা শুরু ,বই ছাড়া জ্ঞান অর্জন করা যায় না -সিটি মেয়র বিভাগীয় সমাবেশ উপলক্ষে ঠাকুরগাঁওয়ে বিএনপির বর্ধিত সভা পাতাল রেল নির্মাণ কাজের উদ্বোধন রোহিঙ্গা প্রসঙ্গে ‘বিশ্ব হাত গুটিয়ে বসে থাকলে আবারো ২০১৭ সালের পুনরাবৃত্তি হবে :জাতিসংঘ
সদর উপজেলার মমিনপুর ইউনিয়নে ৪০ দিন কর্মসূচিতে গ্যার্মেন্টস কর্মীর নামে টাকা উত্তোলন

সদর উপজেলার মমিনপুর ইউনিয়নে ৪০ দিন কর্মসূচিতে গ্যার্মেন্টস কর্মীর নামে টাকা উত্তোলন

এম হামিদুর রহমান লিমিন:

অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মস্থান কর্মসূচি (ইজিপিপি) বা ৪০ দিন কর্মসূচি পালনে রংপুর সদর উপজেলার মমিনপুর ইউনিয়নে চলছে তুঘলকি কান্ড। একজন গার্মেন্টস কর্মী কাজ না করেও নিয়মিত পারিশ্রমিক তুলে নিচ্ছে। এর নেপথ্যে রয়েছে ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আজহারুল ইসলাম। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, মমিনপুর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডে শ্রমিক সংখ্যা ২৬ জন। অবাক করা বিষয় হলো ওই ওয়ার্ডের বাসিন্দা কিলাশ চন্দ্রের স্ত্রী  মিনতি বালার নাম ৪০ দিন কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে। তিনি লাহিড়ীর হাট এলাকায় কারুপণ্য গার্মেন্টেস এ কাজ করেন। ৪০ দিনের কর্মসূচিতে নাম থাকলেও কাজ না করেই নিয়মিত সরকারী বরাদ্দের ভাতাও তুলে নিচ্ছেন। তার ভাতা থেকে ভাগ নেন ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আজহারুল ইসলাম। তাই তাকে অনুউপস্থিত থেকে উপস্থিতি দেখানো হচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন শ্রমিক বলেন, আমাদের ওয়ার্ডের আজাহারুল মেম্বারের প্রিয় লোক বা কাছের লোক হওয়ার কারণে মিনতি বালাকে মাটি কাটতে আসতে হয় না। কেউ কষ্ট করে মাটি কেটে টাকা পায় আর কেউ বসে বসে টাকা পায়। হামরা গরিব মানুষ প্রতিবাদ করলে বাদ দেওয়ার হুমকি দেয় তাই হামরা ভয়ে কিছু কইনা। মিনতি বালার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি আগে ৫ বছর ধরে ৪০ দিনের কর্মসূচীতে রাস্তায় মাটি কাটার কাজ করেছি। বর্তমান আমি প্রায় ২ বছর যাবৎ লাহিড়ীর হাটের কারুপণ্য গার্মেন্টেস এ পাক পাকানো সেকশনে কাজ করছি। তার পরেও আমি মাটি কাটার টাকা পাই। সেখান থেকে মেম্বারকে দেই আমিও নেই তাই মাটি কাটতে হয় না বলে দাবী করেন মিনতি বালা। এই বিষয় নিয়ে ইউপি সদস্য আজাহারুল মেম্বার এর সাথে বার বার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্ঠা করা হলেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি এবং পরিষদে গিয়েও তার সাথে দেখা করা সম্ভব হয়নি। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার (পিআইও) আব্দুল মতিন বলেন, বিষয়টি আমার আগে জানা ছিল না। আমি এই মাত্র আপনার মাধ্যমে জানলাম। বিষয়টি আমলে নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করব। যদি সত্যতা পওয়া যায় তাহলে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত