শিরোনাম :
সিঙ্গাপুর থেকে আমদানি হচ্ছে ৩ কার্গো এলএনজি, ব্যয় ১,২৫৭ কোটি টাকা

সিঙ্গাপুর থেকে আমদানি হচ্ছে ৩ কার্গো এলএনজি, ব্যয় ১,২৫৭ কোটি টাকা

ডেস্ক রিপোর্ট : আন্তর্জাতিক পৃথক তিনটি কোটেশনের মাধ্যমে তিন কার্গো এলএনজি আমদানি করছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। তিন কার্গো এলএনজি আমদানি করতে মোট ব্যয় হবে ১,২৫৬ কোটি ৯২ লাখ ৮৪ হাজার ৭২৮ টাকা। সিঙ্গাপুরভিত্তিক তিনটি প্রতিষ্ঠান এই তিন কার্গো এলএনজি সরবরাহ করবে।

দেশের বিদ্যমান এবং ক্রমবর্ধমান গ্যাসের চাহিদা মেটানোর লক্ষ্যে কক্সবাজারের মহেশখালীতে দৈনিক ৫০০ এমএমসিএফ এবং ৬০০ এমএমসিএফ ক্ষমতাসম্পন্ন দু’টি ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল স্থাপন করা হয়েছে। টার্মিনাল দু’টির মাধ্যমে জি-টু-জি ভিত্তিতে পেট্রোবাংলার সঙ্গে স্বাক্ষরিত চুক্তির আওতায় রাস লাফান লিকুইডিফাইড ন্যাচারাল গ্যাস কোম্পানি লিমিটেড (কাতারগ্যাস) থেকে ১৫ বছর মেয়াদে বর্তমানে ২.৫ এমটিপিএ এলএনজি এবং ওমান ট্রেডিং ইন্টান্যাশনাল (বর্তমান নাম ওকিউটি) থেকে ১০ বছর মেয়াদে বর্তমানে ১.০ এমটিপিএ এলএনজি মোট ৩.৫ এমটিপিএ এলএনজি আমদানি করা হচ্ছে। এছাড়া দেশে বিদ্যুৎ, শিল্প ও সার কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহের জন্য দীর্ঘমেয়াদি ভিত্তিতে এলএনজি আমদানির পাশাপাশি স্পট মার্কেট থেকেও এলএনজি ক্রয় করা হচ্ছে। সে প্রেক্ষিতে স্পট মার্কেট থেকে ২০২৪ সালের জানুয়ারি থেকে জুন সময়ের জন্য অনুমোদিত ১৩ কার্গো এলএনজি’র অতিরিক্ত ১০ কার্গো এলএনজি ক্রয়ের জন্য গত ২২ মার্চ তারিখে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী (প্রধানমন্ত্রী) নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন।

সূত্র জানায়, স্পট মার্কেট থেকে এলএনজি ক্রয়ের জন্য যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে মাস্টার সেল অ্যান্ড পারচেজ অ্যাগ্রিমেন্ট (এমএসপিএ) প্রস্তুত করে প্রয়োজনীয় অনুমোদন নেওয়া হয়। এরপর পেট্রোবাংলা এমএসপিএ অনুস্বাক্ষরকারী ২৩ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চূড়ান্ত এমএসপিএ স্বাক্ষর করে।

উল্লেখ্য, বিগত কয়েক মাস ধরে স্পট মার্কেটে এলএনজি’র মূল্যের তারতম্য লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ফলে সার্বিক বিবেচনায় গত ২৫ মার্চ তারিখে আরপিজিসিএল থেকে এমএসপিএ সরবরাহের দরপ্রস্তাব আহ্বান করে ই-মেইলে চিঠি পাঠানো হয়।

সূত্র জানায়, অন্যএক দরপ্রস্তাবে অংশ নিয়ে এক কার্গো (১৪তম) এলএনজি সরবরাহ করবে সুইজারল্যান্ডভিত্তিক টোটাল এনার্জিস গ্যাস অ্যান্ড পাওয়ার লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটি প্রতি ইউনিট এলএনজি’র দাম ৯.৮৯০০ ইউএস ডলার উল্লেখ করে সর্বনিম্ন দরদাতা হয়। সিঙ্গাপুরভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ভিটল এশিয়া প্রাইভেট লিমিটেড প্রতি ইউনিটের দাম ১০.৩৬৭৭ ইউএস ডলার উল্লেখ করে সেকেন্ড লোয়েস্ট হয়। এঅবস্থায় সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে টোটালএনার্জিস গ্যাস অ্যান্ড পাওয়ার লিমিটেড এক কার্গো এলএনজি সরবরাহ হরবে। এতে মোট ব্যয় হবে ৪২৭ কোটি ৬৭ লাখ ৫২ হাজার ৪৮০ টাকা।

আর এক কার্গো (২০২৪ সালের ১৫তম) এলএনজির জন্য দরপ্রস্তাবে ৩টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। এরমধ্যে সিঙ্গাপুরভিত্তিক গানভর সিঙ্গাপুর প্রাইভেট লিমিটেড প্রতি ইউনিটের দাম ৯.৪৯৬৫ ইউএস ডলার, ভিটল এশিয়া সিঙ্গাপুর ৯.৫৮০০ ইউএস ডলার এবং যুক্তরাষ্ট্রের এক্সেলারেট এনার্জি এলপি ১০.০৮৫৩ ইউএস ডলার উল্লেখ করে। দরপ্রস্তাবে সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে গানভর সিঙ্গাপুর প্রাইভেট লিমিটেড এই এক কার্গো এলএনজি সরবরাহ করবে। এতে মোট ব্যয় হবে ৪১০ কোটি ৬৫ লাখ ৯০ হাজার ৪৮৮ টাকা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত