সিরাজগঞ্জে হত্যা ট্রাক ছিনতাই ও চুরি, ৪ বছর পর আসামি গ্রেপ্তার খুলনায় 

সিরাজগঞ্জে হত্যা ট্রাক ছিনতাই ও চুরি, ৪ বছর পর আসামি গ্রেপ্তার খুলনায় 

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি :
মহাসড়কে চলমান ট্রাক ছিনতাই করে চালক-হেলপারকে খুন ও পামওয়েল চুরির ঘটনায় মামলার প্রধান আসামিকে খুলনা থেকে গ্রেপ্তার করেছে সিরাজগঞ্জ পিবিআই। ঘটনার চার বছর পর গ্রেপ্তার রফিকুল ইসলাম ওরফে হ্যাপি (৩৬) চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের আলোকদিয়া গ্রামের মৃত রজব আলীর ছেলে। সিরাজগঞ্জ পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার রেজাউল করিম সোমবার রাতে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।
ট্রাকচালক চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার আল আমিন পাড়ার মৃত শহীদ কালা মিয়ার ছেলে সাহাব উদ্দিন (৫০) ও চালকের সহকারী নাটোর জেলা সদরের সিংহারদহ দক্ষিণপাড়ার আবুল কালামের ছেলে ইলিয়াস আলী (২০) হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছিলেন।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০১৯ সালের ১৮ মার্চ বিকেলে একটি ট্রাকে মেঘনা ফ্রেশ কম্পানির ৬০ ড্রাম পামওয়েল বোঝাই করে চালক ও সহকারী নাটোরের কিষোয়ান এগ্রো লিমিটেডে পৌঁছানোর জন্য ঢাকা থেকে রওনা দেন। পথিমধ্যে ছিনতাইকারীরা ট্রাকটি ছিনতাইয়ের পর চালক ও সহকারীকে হত্যা করে। তাদের লাশ দুটি ট্রাকের ওপরে ঢেকে রাখা হয়। পরে ৪৪ ড্রাম পামওয়েল চুরি করে ট্রাকটি সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার বাঘাবাড়ি এলাকায় ফেলে পালিয়ে যায় তারা। ২০ মার্চ ট্রাক ও নিহতদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার দিনই কিষোয়ান এগ্রো লিমিটেডের পক্ষে মামুন হোসেন বাদী হয়ে শাহজাদপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।
এরপর পিবিআইয়ের পরিদর্শক গোলাম কিবরিয়া মামলাটি তদন্ত শুরু করেন। কয়েকদিনের  ব্যবধানে ঘটনার সাথে জড়িত পাঁচজনকে আটক এবং ১৯ ড্রাম পামওয়েল উদ্ধার করেন তিনি। ওই সময় আটক দুজন রফিকুল ইসলাম ওরফে হ্যাপিকে প্রধান আসামি হিসাবে উল্লেখ করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়। এরপর থেকে অভিযুক্ত হ্যাপিকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। অবশেষে ২০ নভেম্বর খুলনা থেকে পলাতক হ্যাপিকে গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার তাকে আদালতে হাজির করা হলে সে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এরপর বিচারক তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত