শিরোনাম :
দিঘলিয়া উপজেলা শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী  নওগাঁয় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এর অভিযানে ৬কেজি গাঁজাসহ আটক-১ নাহিদুজ্জামান বাবুর স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি  সিরাজগঞ্জে গরু চুরিতে বাধা দেওয়ায় পিকআপের চাপায় গৃহবধু হত্যা,ডাকাত দলের ৪ পলাতক আসামী গ্রেফতার বড়াইগ্রামে পাটোয়ারী কোয়ালিটি এডুকেয়ার ইনস্টিটিউটে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা অনুষ্টিত পূর্বধলায় সরকারী চাকুরীজীবী হওয়া সত্বেও করেন সাংবাদিকতা খুলনায় মাসব্যাপী একুশে বইমেলা শুরু ,বই ছাড়া জ্ঞান অর্জন করা যায় না -সিটি মেয়র বিভাগীয় সমাবেশ উপলক্ষে ঠাকুরগাঁওয়ে বিএনপির বর্ধিত সভা পাতাল রেল নির্মাণ কাজের উদ্বোধন রোহিঙ্গা প্রসঙ্গে ‘বিশ্ব হাত গুটিয়ে বসে থাকলে আবারো ২০১৭ সালের পুনরাবৃত্তি হবে :জাতিসংঘ
হাতীবান্ধায় বালুমহল বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত 

হাতীবান্ধায় বালুমহল বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত 

লাললমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি :
লাললমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার পাঠিকাপাড়া ইউনিয়নের উত্তর পারুলিয়া চরে বালুমহল বন্ধের দাবীতে স্থানীয় কৃষকদের উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার দুপুরে স্থানীয় কৃষকদের আয়োজনে উত্তর পারুলিয়া চরে ঘন্টাব্যাপি এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে চর এলাকার বাসীন্দা হাজারও কৃষক অংশগ্রহণ করে।  মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন পাটিকাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মজিবুল আলম সাদাত। স্থানীয় কৃষকদের মধ্যে হুমায়ুন কবির, মনিরুজ্জামান,  দেবাশীষ রায়, জাদু মিয়া, শফিকুল ইসলাম,  ইব্রাহীম ও দেলোয়ার হোসেন।
বক্তাগন বলেন,  এখানে আমাদের অনেকের বসতভিটে রয়েছে। আমরা ২৫/২৫ বছর যাবত এই চরে বসবাস করে আসছি। এছাড়া  তিস্তা নদী এখান থেকে পশ্চিম দিকে প্রায় ৬/৭ কিঃমিঃ দূরে সরে গেছে,  জেগে উঠা চরে ভুট্টা,  মরিচ, পিঁয়াজ, আলু, রসুনসহ নানাবিধ ফসল ফলানো হয়। যা দিয়ে আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে সুখে শান্তিতে রয়েছি । কিন্তু ওই জমিতে বালুমহল করা হলে আমরা পথে বসে যাবো। ১৯৪০ ও ১৯৬২ সালের রেকর্ড মূলে ওই জমির মালিক আমরা। কিন্তু তথ্য ভুল করে স্থানীয় প্রশাসন ১৯৯০ সালের রেকর্ডে ১নং খাস খতিয়ানভুক্ত করেছেন বলে দাবীকরে। ওই জমিতে বালুমহল করার জন্য জরিপ করে উপর মহলে পত্র দিয়েছেন। আমরা এই বালু মহল প্রক্রিয়া বন্ধ ও রেকর্ড সংশোধনের দাবী করছি।
হাতীবান্ধা উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভূমি) লোকমান হোসেন বলেন, বিভাগীয় কমিশনার মহোদয়ের নির্দেশক্রমে বি আর এসে খাস খতিয়ানভুক্ত  তিস্তার চরাঞ্চলের কয়েকটি স্থানে বালুমহল করার প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। তবে স্থানীয় কৃষকদের আপত্তি থাকলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত