শিরোনাম :
গাজীপুরে শিক্ষক পরিবারের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানীর অভিযোগ গাজীপুরে সরকারি হাসপাতালে পুলিশসহ ২জনকে কামড়ে দিলো রিক্সা চালক নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলা জামনগর ডিগ্রি কলেজের নতুন ভবনের উদ্বোধন ভূমিসেবায় এখন কোন হয়রানি নাই, কেউ দালালের কাছে যাবেন না:নরসিংদীর জেলা প্রশাসক গাজীপুরে সুদের টাকা পরিশোধ করেও হয়রানির শিকার রাজবাড়ীতে ট্রেনে কাটা পড়ে মৎসজীবী নিহত মধুপুরে ভূমি সেবা সপ্তাহ  উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‍্যালি অনুষ্ঠিত ভূমি অধিগ্রহণ সম্পন্ন না হওয়ায় পিরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে ভৈরব সেতুর নির্মাণ কাজ ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন পাচারকারীর হাত থেকে পালিয়ে দেশে ফিরলো এক যুবতী, ঘটনার সাথে জড়িত গ্রেফতার  ৩ 
শ্রীপুরে সংখ্যালঘুদের গাছ কেটেছে এক প্রভাবশালী

শ্রীপুরে সংখ্যালঘুদের গাছ কেটেছে এক প্রভাবশালী

সোহাগ রানা: আদালতে মামলা থাকা সত্বেও দা লাঠি নিয়ে ১০-১২ জনের সহযোগিতায় গায়ের জোর দেখিয়ে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার বরমী ইউনিয়নের ভিটিপাড়া গ্রামের মৃত দিগেন্দ্র বর্মনের সন্তান দিলীপ বর্মনের পৈত্রিক সম্পত্তির বসতভিটা থাকা একটি কড়ই গাছ কেটে পুলিশ আসার আগেই পালিয়েছে অভিযুক্ত আলাউদ্দিন। গত (১২ জানুয়ারি) ভুক্তভোগী সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের দিগেন্দ্র বর্মনের সন্তান দিপক বর্মন জমি সংক্রান্ত জেরে হুমকি দেওয়ায় ওই গ্রামের মৃত হাবিবুর রহমানের সন্তান আলাউদ্দিন ও তার ভাই নুরুল আমিনকে অভিযুক্ত করে শ্রীপুর মডেল থানায় জানমালের নিরাপত্তার জন্য একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) নম্বর ৫৭০ করেন। ভুক্তভোগী দিলীপ বর্মন জানিয়েছেন, রোববার (১৯ জানুয়ারি) সকাল দশটায় আলাউদ্দিনসহ ১০-১২ জন দা লাঠি নিয়ে এসে আমার চোখের সামনে একটি কড়ই গাছ কেটে আর একটি গাছ কাটার চেষ্টা চালায়। যে গাছটি কেটে ফেলছে ওই গাছের দাম হবে ১৫ হাজার টাকা। তাড়াহুড়ো করে গাছটি কাটায় গাছ পড়ে পাশে থাকা বাঁশঝাড়ের ২০টি বাঁশ নষ্ট হয়। পরে তারা পুলিশ আসার খবর পেয়ে পালিয়ে যায়। আমরা সংখ্যালঘু হওয়ায় প্রায় দুই বছর যাবৎ অভিযুক্তরা আমাদের একটি মিথ্যা মামলা দিয়েছে। বর্তমানেও প্রতিনিয়তই হুমকি দিয়ে বলে বুলডোজার দিয়ে আমাদেরকে উচ্ছেদ করে দেবে। আমরা পাঁচ ভাই। আমরা সকলেই আলাউদ্দিনের নির্যাতনের শিকার। আমরা এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে বিচার চাই। অভিযুক্ত আলাউদ্দিন জানিয়েছেন, আমাদের গাছ আমরা কেটেছি ৷ ওদের এখানে কোনও জমি নেই। আমি তাদের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ মামলা করে আইনি প্রক্রিয়ায় উচ্ছেদ করবো৷ তিনি আরও বলেন, তদন্ত করবে উভয়পক্ষের সাথে কথা বলবে সেটাই-তো পুলিশের কাজ। আমি বাসায় ছিলাম না। পুলিশ এসে আমার মা-বোনদের আপত্তিকর ভাষায় গালাগাল করেছে। আমি এ ব্যাপারে এসপিকে অভিযোগ দেবো। এসময় আলাউদ্দিনের বোন এসে প্রতিবেদককে বলেন, এসআই মালেক আমাকেসহ আমার মা বোনকে তুলে এতো নোংরা ভাষায় গালাগাল করেছে। তিনি তার ভাষায় যেভাবে প্রতিবেদককে যা বলেছেন তা গণমাধ্যমে প্রকাশ করা সম্ভব হয়নি। শ্রীপুর থানার এসআই মালেক জানিয়েছেন, ‘ওসি স্যার আমাকে গতকালকে বলছিল ওরা গাছ কাটতেছে গিয়ে নিষেধ করে আসো। আমি গিয়ে আলাউদ্দিনকে বাড়িতে পাইনি। ওই গাছের ব্যাপারে তিনি বলেন আদালত থেকে সিদ্ধান্ত না দেওয়া পর্যন্ত গাছ যেভাবে আছে সেভাবেই রাখার নির্দেশ দিয়ে আসছি। অভিযুক্তদের বাড়িতে গিয়ে গালাগাল প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মহিলাদের গালাগাল করবো কেন বলেন ? ওর ভাগিনা একটা আছে তার নামে চারটা মাদক মামলা আছে। তবে আমি কাউকে গালি দেইনি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত