শিরোনাম :
গাজীপুরে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে সৎবাবা গ্রেফতার ৫ম ধাপের মনোনয়ন ফরম কাল থেকে বিক্রি করবে আ.লীগ ; জমাদানের শেষ তারিখ ১ ডিসেম্বর ফরিদপুরে মোটর সাইকেল চোর চক্রের ৫ সদস্য আটক ঝিনাইদহে কৃষককে গলা কেটে হত্যা মানুষের সেবায় রক্তের প্রয়োজনে নবপুষ্প ব্লাড ফাউন্ডেশন লালমনিরহাটের দৈখাওয়ায় মিথ্যা অভিযোগ ও সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে মানববন্ধন সিরাজগঞ্জে শাহজাদপুরে নব নির্বাচিত এমপি প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতাকে ফুলেল শুভেচছা ঠাকুরগাঁওয়ে তাড়া খেয়ে মরলো নীলগাই লক্ষ্মীপুরে স্বেচ্ছাসেবীদের ভালোবাসায় সিক্ত হারুন-নাহার দম্পত্তি ফরিদপুরে হুমায়ূন স্মরণ উৎসব ও ক্যামেরার কবি আলোকচিত্রী নাসির আলী মামুনের সম্বর্ধনা অনুষ্ঠিত
ঢাকার আলোকিত সাদা মনের মানুষ ১৭নং ওয়ার্ডের সাবেক সফল কমিশনার কাজী হযরত আলী

ঢাকার আলোকিত সাদা মনের মানুষ ১৭নং ওয়ার্ডের সাবেক সফল কমিশনার কাজী হযরত আলী

নিজস্ব প্রতিনিধি:

রাজধানীর ভাটারা থানার কুড়িল বিশ্ব রোডের একজন ব্যতিক্রমধর্মী ঢাকা’র আলোকিত সাদা মনের মানুষ, প্রবীন সমাজসেবক, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১৭নং ওয়ার্ডের তিন টার্মে ধারাবাহিকভাবে সাবেক সফল কমিশনার, ১নং ওয়ার্ডের সাবেক ভারপ্রাপ্ত কমিশনার কাজী হযরত আলী সমাজের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি একজন সহজ সরল মানুষ হিসেবে ছাত্র জীবন থেকে শুরু করে অদ্যাবধি পর্যন্ত নিঃস্বার্থভাবে সমাজের ও দেশের জনগণের কল্যাণে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। ১৭নং ওয়ার্ডের একসময় খিলক্ষেত, সাওড়া, কুড়িল, বিশ্বরোডে রাস্তাঘাটের বেহাল দশা ছিল। বেশিরভাগ এলাকা নিচু জলাশয় ও গর্ত ছিল। রাস্তাঘাট, বাড়ীঘর, স্কুল-কলেজ বেশী ছিল না। কাজী হযরত আলী কমিশনারের দায়িত্ব পাওয়ার পর তিনি যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করে এলাকার রাস্তাঘাট, ব্রীজ-কালভার্ট, সুয়ারেজ ড্রেন ও পানি নিষ্কাশন ড্রেনসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। তিনি ১৭নং ওয়ার্ডের ১৬-১৭ বছর যাবত ধারাবাহিকভাবে কমিশনার নির্বাচিত হয়ে নিষ্ঠার সাথে ও নিরলসভাবে এলাকার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করেন। তাকে ১৭নং ওয়ার্ডের উন্নয়নের রূপকার বলা যায়। তার মাঝে হিংসা, বিদ্বেষ, অহংকার নেই। তিনি দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষকে আন্তরিকতার সহিত ভালবসেন। তার কাছে ধনি-গরীব সবাই সমান মূল্যায়ন পায়। এলাকার কোন মানুষের সমস্যা হলে তিনি নিজ উদ্যোগে ঐ মানুষের সমস্যা সমাধান করে থাকেন। তিনি সামাজিক কাজে বিশেষ অবদানের জন্য সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান থেকে একাধিকবার স্বর্ণপদক ও সম্মাননা পদক পেয়েছেন। কুড়িল বিশ্বরোডসহ এর আশেপাশের এলাকার কোন লোক মারা গেলে তিনি সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে মৃত ব্যক্তিকে দেখতে যান। গরীব ও অসহায় লোক মারা গেলে তিনি নিজ খরচে দাফন-কাফনের ব্যবস্থা করেন। গরীব ছাত্রদের পড়াশোনা করার ও গরীব মেয়ের বিবাহে আর্থিক সাহায্য-সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। এলাকার স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসা ও এতিমখানার উন্নয়নে তার বিশেষ অবদান রয়েছে। সমাজের ও দেশে এ ধরনের মানুষের বড় অভাব রয়েছে। সমাজ ও দেশের প্রতিটি মানুষ কাজী হযরত আলীর মতো হওয়া প্রয়োজন। তিনি সমাজের ও দেশের মানুষের অনুসরণ ও অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে এমনি প্রত্যাশা সকলের নিকট।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত