ভাঙ্গা রাস্তায় দুর্বিষহ বিড়ম্বনার স্বীকার উত্তরখান দক্ষিণখানের জনগণ

ভাঙ্গা রাস্তায় দুর্বিষহ বিড়ম্বনার স্বীকার উত্তরখান দক্ষিণখানের জনগণ

শাহীন মির্জা : ভাঙ্গা রাস্তায় পথ চলতে অনুপযোগী, মানুষের সীমাহীন কষ্টের আরেক জনপদ উত্তরখান ও দক্ষিণখানের রাস্তাগুলো। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের যে কয়টি ইউনিয়ন পরিষদ সিটি কর্পোরেশনের মধ্যে নতুন ভাবে অন্তর্ভূক্ত হয়েছে তার মধ্যে অন্যতম হলো উত্তর ও দক্ষিণখান ইউনিয়ন পরিষদ। উত্তর ও দক্ষিণখানের গৌরব ঐতিহ্য সুনাম, রাজনৈতিক কার্যক্রম দীর্ঘদিনের থাকলে ও কালের বিবর্তনে দিনে দিনে সুনাম ম্লান হয়ে যাচ্ছে। উত্তরখান ও দক্ষিণখানে বসত করে এবং যারা নতুন করে ঐ এলাকায় যাতায়ত করছে তারা সবাই ঐ এলাকার রাস্তার ব্যাপারে আঙ্গুল তুলে কথা বলে জন প্রতিনিধিদের দিকে। এই রাস্তাগুলো দিয়ে চলতে গেলে মনে হয় এগুলো সিটি কর্পোরেশনের রাস্তা নয় এগুলো মরন ফাঁদ, মানুষ মারার গ্যারাকল। জনগনের পথচলা কষ্টের আত্নচিৎকার আত্নবিলাপ কে শুনবে যিনি লংকায় যান তিনিই রাবন হন। দেশবাসী জানলে অবাক হবে এই দুইটি থানা ঢাকা ১৮ আসনের অন্তরভূক্ত হয়েও ডিজিটাল উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি। অথচ আওয়ামীলীগের সাবেক বর্ষিয়মান নেতা ছিলেন ও বাংলাদেশের প্রথম মহিলা সরাষ্ট্রমন্ত্রী এ্যাডঃ সাহারা খাতুন এম.পি তবু এ এলাকার রাস্তার দৃশ্যমান উন্নয়ন হয় নাই। বর্তমানে ১৮ আসনের উপনির্বাচনে এম.পি আলহাজ্ব হাবিব হাসানের অধিনে উত্তরখান ও দক্ষিণখান দুটি থানায় মোট ৮টি ওয়ার্ড গঠিত তাই সবাই তার হস্তক্ষেপে এলাকার উন্নয়ন চান। এখন পর্যন্ত অধিকাংশ এই দুই থানার রাস্তার উন্নয়ন দেখা যায় না, রাস্তাগুলো খানাখন্দে ভরা। অসুস্থ রোগীকে এ রাস্তা দিয়ে নিয়ে গেলে রোগী মৃত্যু পথযাত্রী হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। গর্ভবতী মায়েরা এ রাস্তা দিয়ে যাতায়ত করতে সীমাহীন বিড়ম্বনার স্বীকার হয় রোগী আরো বেশী অসুস্থ হয়ে পড়ে। উত্তরখান ও দক্ষিণখানে অত্যাধুনিক উন্নত মানের কয়েকটি হসপিটাল ও কলেজ থাকার পরও সেখানে রাস্তার দূর অবস্থা ও জন দূর্ভোগের কারনে রোগী ভর্তি করতে চায় না, কলেজ গুলোতে ও ছাত্রছাত্রী তুলনামূলক কম। এ এলাকায় অল্পসময় বৃষ্টি হলে রাস্তা গুলো মনে হয় জলাশয়। উত্তর ও দক্ষিণখান থানার অধিকাংশ রাস্তাগুলো মানুষ ও যান চলাচলের জন্য অনুপযোগী। সরেজমিনে খোজ নিয়ে দেখা যায় রাস্তা গুলো বিভিন্ন জায়গায় ভাংগা গর্ত পিচ উঠে গেছে, কোথাও কাচা রাস্তা, ইটের সলিং ভেংগে গেছে, ভাংগা ড্রেন রাস্তা কোথাও সরু এই সমস্যাগুলোর মধ্যেই প্রতিদিন পথ চলতে হচ্ছে উত্তর ও দক্ষিণখান বাসীর। এই জনদূর্ভোগ নিত্য সঙ্গী করে দুই থানা এলাকার অনেক শিল্প কারখানা, হাসপাতাল, আবাসিক প্রকল্প, কলেজ, মাদরাসা, আবাসিক হোটেল, স্কুল সরকারী বেসরকারী অফিস থাকায় প্রচুর লোকের সমাগম হয়। কিন্তু সেই তুলনায় এলাকার রাস্তাগুলো কোন জনপ্রতিনিধি সু-নজর দিয়ে নতুন রাস্তা তৈরি করে নাই। স্থানীয় অনেকে আক্ষেপ করে বলেন আমরা ঢাকা উত্তর সিটির আওয়াতাধীন থাকায় নিয়মিত ট্যাক্স, ভ্যাট দিয়েও রাস্তার সুফল ভোগ করতে পারছি না। জনৈক বয়স্ক ব্যক্তি বলেন বাবা কত নেতা আসে যায় আমাদের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়না। ভোটের আগে কত কথার ফুলঝুড়ি, স্বপ্ন, আশা ভালোবাসা দেয় পাশ করার পর কেউ খোজ খবর নেয় না। রাস্তার উন্নয়নের অভিযোগ করে কোন লাভ নাই, ক্ষমতা তাদের হাতে, ইচ্ছা ও তাদের হাতে আমি সরাদিন চিৎকার করলেও লাভ নাই। নেতাদের প্রতিশ্রুতি জাদুঘরে বন্ধ থাকে আমাদের রাস্তার উন্নয়ন হয় না। উত্তর, দক্ষিণখানে থানার বিভিন্নরোডে অনুমোদন হীন প্রচুর অটোরিক্সা চলে রাস্তা খারাপ হওয়ায় তাদের অভিযোগের শেষ নাই। অটোড্রাইভার বলে ভাই অটো থেকে নেতা, পুলিশ সবাই চাঁদার টাকার ভাগ নেয় কিন্তু কেউ রাস্তা ঠিক করে না। বৃষ্টির মধ্যে পথ চলতে কষ্ট হয় গাড়ির ক্ষতি হয় যাত্রীর কষ্ট হয়, অভিযোগ করে কোন লাভ হয় না। কখনো যদি কোন রাস্তা মেরামত করা হয় তা অল্পদিনের মধ্যে ভেঙ্গে যায় খানা খন্দে ভরে যায়। অদক্ষ ও সিন্ডিকেট ঠিকাদারদের অধিক মুনাফার জন্য তারা নামে মাত্র রাস্তা মেরামত করে যা অল্পদিনের মধ্যে ভেঙ্গে যায়। সিন্ডিকেটের পাতি নেতাদের ভয়ে স্থানীয়রা প্রতিবাদ করতে পারে না। দক্ষিণখান থানার হলান অটোষ্ট্যান্ড থেকে বউরা টেম্পুষ্ট্যান্ড, হলান অটোষ্ট্যান্ড থেকে আশকোনা প্রাইমারী স্কুল, উচ্চারটেক মেডিকেল রোড, দক্ষিণখান থেকে কসাইবাড়ী রোড, পন্ডিতপাড়া থেকে সোনারখোলা সিটি কমপ্লেক্স রোড, দক্ষিণখান থেকে মাজার রোড। উত্তরখানে চাঁন পাড়া থেকে মাষ্টারপাড়া, মাষ্টারপাড়া হতে শাহী মসাজিদ আমিন উদ্দিন ভূইয়া মার্কেটের সামনে, হেলাল মার্কেটের সামনে, চাঁমুরখান থেকে রাজাবাড়ী, কাঁচকুড়া বাজার থেকে বাওতার পর্যন্ত। অনেকের বাড়ীর সামনে রাস্তার বেহাল দশা এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে জনপ্রতিনিধিদের দোষারোপ করেন। এই ঘনবনতি পূর্ণ এলাকায় কোন, রহস্যের কারনে অদৃশ্য শক্তির বলে রাস্তাগুলো শেখ হাসিনার ডিজিটাল উন্নয়নের ছোয়া পাচ্ছে না। যা দক্ষিণখান উত্তরখানের এলাকাবাসীর জনগনের মাঝে প্রশ্ন জাগে। এলাকা বাসী আশায় বুক বেধে আছে ১৮ আসনের নতুন এম. পি আলহাজ্ব হাবীব হাসানের নির্দেশে তাদের রাস্তার উন্নয়ন কাজ হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || ডেইলি আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত