শিরোনাম :
দীর্ঘস্থায়ী দুর্ভোগে পড়তে যাচ্ছে পাহাড়ি এলাকাবাসী

দীর্ঘস্থায়ী দুর্ভোগে পড়তে যাচ্ছে পাহাড়ি এলাকাবাসী

স্বজন কক্সবাজার :

রামুতে কয়েকটি মেগা প্রজেক্টের মধ্যে বর্তমানে চলমান দোহাজারী রেল প্রকল্প অন্যতম। এই রেল প্রকল্পের জন্য কক্সবাজারবাসীর আনন্দের শেষ নাই। রাজনৈতিক দলসহ বিভিন্ন সামাজিক সংঘঠনও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও রেল মন্ত্রনালয়ের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেছে অনেকবার। এখন শুধু কাজের শেষটা দেখার অপেক্ষা নিয়ে বসে আছে কক্সবাজারবাসী। পুরো কক্সবাজারবাসী আনন্দমুখর থাকলেও রাজারকুলের শতশত পাহাড়ি এলাকার মাঝে নেই কোন ধরনের আনন্দ বরং চিন্তায় কেটে যাচ্ছে প্রতিদিন। রাজারকুলের ১নং,২নং ও ৩নং ওয়ার্ডের শতশত পাহাড়ি এলাকাবাসীর দীর্ঘস্থায়ী দুর্ভোগের কারন হতে পারে এই রেল লাইন। রেল প্রকল্পের পর রাজারকুলের বিভিন্ন কার্যক্রম থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হতে পারে পাহাড়ি এলাকাবাসী। এমনটি মন্তব্য করেছেন রাজারকুলের বৃহত্তম সামাজিক সংঘঠন স্বজন। তারা আরো বলেন, রাজারকুলের ১নং, ২নং ও ৩নং ওয়ার্ডের পাহাড়ি এলাকাবাসীর জন্য ছিলো তিনটি পাকা রাস্তা। কিন্তু দীর্ঘ ১০/১১ কিলোমিটারে একটিও রাস্তায় পড়েনি রোড় ক্রসিং। ক্রসিংহীন এই রোড় গুলো ছিলো তাদের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম। ফলে ছাত্র-ছাত্রীসহ সকল পেশার মানুষকে পড়তে হচ্ছে নানার দুর্ভোগে। বর্তমান অবস্থা যাই হোক অদুর ভবিষ্যতে যাতায়াত ব্যবস্থাহীন হয়ে পড়বে এই বিশাল এলাকা। সম্পর্ক ও আত্মীয়তাহীন হয়ে পড়বে রাজারকুলের এই পাহাড়ি এলাকার শতশত পরিবার। অথচ স্বাধীনতার পূর্ববর্তী সময় থেকে রাজারকুলের সাথে তাদের সম্পর্ক ও আত্মীয়তা ছিলো প্রশংসনীয়। বিষয়টি নিয়ে রাজারকুল ইউনিয়নের সর্বস্থরের মানুষের মাঝে চিন্তার শেষ নেই। ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমানসহ বিভিন্ন পেশার মানুষের সাক্ষরিত একটি আবেদন পত্র পাঠানো হয়েছে দোহাজারী রেল পরিচালক বরাবর। গত ১৫ ই জুন আবেদন পত্রটি জমা দেন স্বজনের সদস্যরা। তারা রেল কতৃপক্ষের কাছে বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত