শিরোনাম :
সাইবার বুলিং বাড়ছে, বিপদ বলয়ে শিশু-কিশোররা জন্ম ও মৃত্যুবরণ করলে ৪৫ দিনের মধ্যে নিবন্ধন করার আহবান :স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব ইন্দোশিয়ার রাজধানী জাকার্তা থেকে  নুসানতারা কমলগঞ্জে জলাশয়ে পাওয়া গেল এক নারীর মরদেহ দেশে ওমিক্রন শনাক্তের হার ঊর্ধ্বগামী, নতুন ঢেউ আছড়ে পড়ার শঙ্কা কমনওয়েলথ গেমস বাছাইয়ে বিজয়ী টাইগ্রেসরা পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রস্তার নাকচ করে দিয়েছে তালেবান সরকার শিমুর হত্যার দায় স্বীকার করলো স্বামী নোবেল খুলনা দাকোপ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্সের অশোভন আচরণ , রোগীদের অভিযোগ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার মতো পরিস্থিতি এখনও তৈরি হয়নি : দীপু মনি
কাপাসিয়ায় ঘোষেরকান্দী গ্রামের প্রবাস ফেরত রুবেল ও তার স্ত্রী নূরুন নাহারের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

কাপাসিয়ায় ঘোষেরকান্দী গ্রামের প্রবাস ফেরত রুবেল ও তার স্ত্রী নূরুন নাহারের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গোলাম সারোয়ার :
গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার টোকের ঘোষেরকান্দীর প্রবাস ফেরত রুবেল ফ্যানের সাথে ও তার স্ত্রী নুরুন্নাহার গলায় ওড়না পেচিয়ে ঘরের আড়ার সাথে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে । পৃথক ঘর থেকে তাদের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার টোক ইউনিয়নের ঘোষেরকান্দী এলাকার দুলাল মিয়ার বাড়ির টিন শীট ঘরের দুই রুম থেকে স্বামী স্ত্রী’র পৃথক দু’টি লাশ উদ্ধার করা হয়। স্বামী ফ্যানের সাথে এবং স্ত্রী ঘরের আড়ার সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।
জানা যায়, পারিবারিক কলহের জেরে তারা দুজনেই ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে বলে পরিবারের ধারণা। প্রায় এক যুগ পূর্বে ঘোষেরকান্দী এলাকার দুলাল মিয়ার ছেলে রুবেল মিয়া (৩৫) এর সাথে কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার এগারোসিন্দুর ইউনিয়নের তালদশি গ্রামের নূরুল ইসলামের মেয়ে নুরুন নাহার (৩০) পারিবারিক ভাবে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়। বৈবাহিক জীবনে তাদের দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে।
নিহত রুবেলের মা বলেন, “আমার একটাই পুত (ছেলে)। ১২/১৩ বছর অইছে বিয়া করাইছি তালদশি গ্রামে। আমার দুইড্ডা নাতি আছে। আমার পুত (ছেলে) আড়াই তিন বছর ধইরা বিদেশ থাকতো পনেরো ষোল দিন অইছে দেশে আইছে। আউনের পরে তারা বেডা-বেডি নানানতা লইয়া ঝগড়া কইরা বাপের বাড়ি গেছিনগা বৌ কয়েকদিন পরে শ্বশুরে গিয়া আনছে। এরপর থেইকা ভালোই আছিন তারা। কাল্লাহ (গত কাল) কি অইছে কইতারি না। রাইতে আবার আমরা এক সাথে সবাই খাইছি। আনুমানিক রাইত এগারো বারটার দিকে বাইরে বাইরহইছি, ঘরে বাতি জ্বলে দেইক্কা কইছি রুবেল ঘুমাইছত না। ছেলে কয় মা মোবাইলে নাটক দেহি এখন ঘুমাইয়াম। সকালে দেহি দুইজনের লাশ।”
প্রাথমিক সুরতহাল নির্ণয়কারী ও স্থানীয় একাধিক সূত্র থেকে জানা যায় , নুরুন নাহার ফজরের আযানের সময় তার সন্তান কে মসজিদে দিয়ে আসছে। এতো সকালে কোন দিন দিয়ে আসে নাই। মসজিদ থেকে এসে নুরুন নাহার ফাঁস নিছে, লাশ দেখে তাই মনে হচ্ছে। আর রুবেলের লাশ দেখে মনে হচ্ছে মধ্য রাতে দিকে ফাঁস নিতে পারে।
এ বিষয়ে কাপাসিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম নাসিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি প্রতিবেদককে বলেন, স্বামী-স্ত্রী পারিবারিক কলহের জেরে একটি পার্টিশন ঘরের দুই পাশে অর্থাৎ পার্টিশনের এক পাশে স্বামী আরেক পাশে স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। কোন বাদী না থাকায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত