শিরোনাম :
ঝিনাইগাতী গজনী অবকাশ কেন্দ্র বাসের চাপায় প্রাণ গেলো আইসক্রীম বিক্রেতার বর্ণাঢ্য আয়োজনে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন গাজীপুর জেলার পিকনিক ২০২৪  অনুষ্ঠিত সবসময়ই কালোকে কালো এবং সাদাকে সাদা বলে দৈনিক  যুগান্তর ভান্ডারিয়ায় স্মার্ট আই ডি  বিতরণ  মোরেলগঞ্জ ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে বসতঘর ভস্মিভূত, ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি খুলনায় আতাই নদী থেকে উদ্ধারকৃত মাহফুজকে বৈবাহিক কারণে স্ত্রীর স্বজনদের হাতে জীবন দিতে হয়েছে নওগাঁর মান্দায় নিভৃত পল্লী গ্রাম মশিদপুরে দিনব্যাপী বইমেলা বড়াইগ্রামে বর্ণিল আয়োজনে পিঠা উৎসব ও বসন্ত বরণ বাঘায় সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন  সীমান্তে হত্যা ও বিদেশী আগ্রাসন বন্ধের দাবীতে ঠাকুরগাঁওয়ে প্রতীকী লাশের মিছিল
ইউনুস ও সিরাজ মেম্বরের প্রতারনায় বেক্সিমকো গ্রুপের আড়াই কোটি লাপাত্তা!

ইউনুস ও সিরাজ মেম্বরের প্রতারনায় বেক্সিমকো গ্রুপের আড়াই কোটি লাপাত্তা!

ঢাকার অদূরে আশুলিয়া থানার পাশ্ববর্তী মুজারমিল এলাকায় বেক্সিমকো গ্রুপের সানসিটি প্রজেক্টর জমি ক্রয়ের নামে আড়াই কোটি টাকা আত্মাসাত করেছে কোম্পানির এ্যাডমিন  ম্যানেজার ইউনুস আলী ও স্থানীয় প্রতারক সিরাজ মেম্বার (সাবেক)। সুত্রে জানা যায়, বেক্সিমকো গ্রুপে কর্মরত এ্যাডমিন ম্যানেজার মোঃ ইউনুস আলী, ছোট গোবিন্দ পুর মৌজার সিএস, এসএ, ৩২, আর এস, ২৩ এ মোট জমি ১২ একর ৫৬ শতাংশ ইহার কাতে ৫ একর জমি কেনার ইচ্ছা পোষণ করেন। এই সুযোগে সিরাজ মেম্বার বর্ণিত তফসিলের ৫ একর জমির দলিলপত্রসহ অন্যান্য কাগজপত্র তার মেয়ে জামাই সালাম উকিল এর সহযোগিতায় জাল ও জালিয়াতি মাধ্যমে ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে।উক্ত জমির ভুয়া মালিক সাজিয়ে  বেক্সিমকো কোম্পানির নিকট সমজতা চুক্তির মাধ্যমে কোম্পানির আড়াই কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে এডমিন ম্যানেজার ইউনুস আলী ও প্রতারক সিরাজ মেম্বার এর বিরুদ্ধে । খোঁজ নিয়ে জানা যায়ঃ উক্ত জমির দলিল মুল্যে মালিক এম এ এম করিম। তার নামে খাজনা খারিজ থাকা সত্ত্বেও সিরাজ মেম্বার ও বেক্সিমকো গ্রপের এ্যাডমিন ম্যনেজার ইউনুস আলী  কাগজপত্র গুলো জাল-জালিয়াতি করে বেক্সিমকো গ্রুপের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে দেখায় এবং সত্য গোপন রেখে মিথ্যাকে উপস্থাপন করে আড়াই কোটি টাকা সিরাজ মেম্বারকে প্রদান করা হয়েছে। বর্তমানে উক্ত জমি সিরাজ মেম্বার এর ক্ষমতা বলে কোম্পানি ভোগ দখলে থাকলেও কাগজপত্রের দুর্বলতার কারণে কোম্পানি নামজারি খাজনা-খারিজ করিতে পারিতেছে না। এমতাবস্থায় কোম্পানির এডমিন ম্যানেজার ইউনুস আলী কোন উপায় না পেয়ে নিজের চাকরি বাঁচানোর জন্য সিরাজ মেম্বারের যোগসাজশে গাজীপুর আর ডিসি অফিসে ছুটে যান । কথিত অসৎ কর্মচারীর সহযোগিতায় মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে জমির কাগজপত্রের দুর্বলতা ও ঘাটতি পূরণের জন্য তাড়াহুড়া করে জমির খতিয়ান সংশোধন করে সিরাজ মেম্বার নিজ মালিকানা সাজার অপ-প্রচেষ্টা চালিয়ে আসিতেছে। যাহার সার্বিক বিষয়ে সহযোগিতা করে আসছে বেক্সিমকো গ্রুপের এ্যাডমিন ম্যানেজার ইউনুস আলী। এ বিষয়ে গাজীপুর ডিসি অফিসে যোগাযোগ করা হলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। উল্লেখ্য যে ইতিপূর্বে জমির সত্যিকারের মালিক এমএ করিম জমিতে ঘর বাড়ি ও বেড়া নির্মাণ করে দখলে ছিলেন । এম এ করিম দখলে থাকা সত্ত্বেও সিরাজ মেম্বার এর শালা হারুন এলাকার ক্ষমতাধর ব্যক্তি হওয়ায় এমএ করিম নিজ জমিতে অবস্থান করিতে পারে নাই। তাহাকে বিভিন্ন প্রকার ভয় ভীতি প্রদর্শন করে এবং জীবননাশের হুমকি প্রদান করে আসছিল সিরাজ মেম্বার তার পেশি শক্তির বলে নিরিহ এমএ করিমকে তার জমি থেকে উচ্ছেদ করে। জমি ক্রয় ও সিরাজ মেম্বরকে টাকাপয়সা  হস্তান্তরের বিষয়ে বেক্সিমকো গ্রুপের এ্যাডমিন ম্যানেজার ইউনুস আলীর নিকট জানতে চাইলে: জমি ক্রয়ের বিষয়টি স্বীকার করিলেও টাকা-পয়সা হস্তান্তরের বিষয়টি অন্যের উপর দোষ চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। এ্যাডমিন ম্যানেজার ইউনুস আলী বেক্সিমকো কোম্পানিতে দীর্ঘ পঁচিশ ছাব্বিশ বছর যাবৎ চাকরি করা সুবাদে- কোম্পানির কোনো কর্মকর্তাকে তোয়াক্কা  করে না।তার একক সিদ্ধান্তে আরো অনেক অনৈতিক, অবৈধ ভাবে অন্যায় কাজ কর্ম করে চলেছে। যাহার ফলে কোম্পানির অপূরণীয় ক্ষতি হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

….চলমান….১…

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত