শিরোনাম :
পৃথিবীতে মানুষের চেয়ে মোবাইলের ব্যবহারকারী বেশি : মোবাইলের জনক

পৃথিবীতে মানুষের চেয়ে মোবাইলের ব্যবহারকারী বেশি : মোবাইলের জনক

বিজ্ঞান ডেস্ক:

মার্কিন প্রকৌশলী মার্টিন কুপার। তাঁকে মোবাইলফোনের জনক বলা হয়। তিনি বলেন আমাদের সবার পকেটে যে ছোট্ট যন্ত্রটি রয়েছে, সেটির সম্ভাবনা অসীম। একদিন এ যন্ত্র দিয়ে রোগ নিরাময়ও সম্ভব।’

তবে এখন মানুষ মোবাইল ফোন নিয়ে কিছুটা আসক্ত হয়ে পড়েছে। ক্যালিফোর্নিয়ার ডেলমারে নিজের কার্যালয় থেকে ৯৪ বছরের এই প্রকৌশলী বলেন আমি খুবই বিমর্ষ হয়ে যাই যখন দেখি, কেউ মুঠোফোনের দিকে তাকিয়ে রাস্তা পার হচ্ছে।’ তিনি মজা করে আরও বলেন, কিছু লোক গাড়ির ধাক্কা খাওয়ার পর হয়তো ঘটনাটি বুঝতে পারবে।

কুপার একটি অ্যাপল ওয়াচ পরেছিলেন। তিনি আইফোন ব্যবহার করেন। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে ভালোবাসেন কুপার। তারপরও তিনি বলেছেন,  আমার নাতি–নাতনিরা কীভাবে মোবাইল ফোন ব্যবহার করছে, আমি কখনোই তা বুঝতে পারব না।’

১৯৭২ সালের শেষ দিকে কুপার এমন একটি যন্ত্র আবিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেন, যেটি যেকোনো জায়গায় ব্যবহার করা যাবে। যেমন ভাবা, তেমন কাজ শুরু। কুপার ও তাঁর দল ওই বছরের মার্চের শেষ দিকে ডায়না ট্যাক-ডায়নামিক অ্যাডাপটিভ টোটাল এরিয়া কভারেজ ফোন আবিষ্কার করেন। এ ধরনের ফোনগুলোর ওজন ছিল এক কেজির বেশি। এসব ফোনে যে ব্যাটারি ব্যবহার করা হতো, তা দিয়ে মাত্র ২৫ মিনিট কথা বলা যেত। কুপার বলেন সমস্যা আসলে সেটা ছিল না। এই ফোনগুলো এত বেশি ভারী ছিল যে, ২৫ মিনিটের বেশি হাতে ধরে রাখা যেত না।’

প্রথম দিকের সেই মোবাইল ফোন মোটেও সস্তা ছিল না। কুপার বলেন, একেকটি ফোনের দাম পড়ত পাঁচ হাজার ডলার।

কুপার বলেন, মোবাইল ফোন এখন বহু কাজে আসে। আমরা কেবল শুরু করেছিলাম। শুরুটা ছিল এই ফোন কী করতে পারে, তা দিয়ে।’

শুরুর দিকেই কুপার জানতেন, একদিন সবার হাতে হাতে এই ফোন থাকবে। তিনি বলেন, আর এখন সেই সময় চলে এসেছে। কুপার আরও বলেন আজকের বিশ্বে মানুষের সংখ্যার চেয়ে মোবাইল ফোনের গ্রাহকের সংখ্যা বেশি। তাই আমাদের স্বপ্নের একটা অংশ সত্য হয়ে গেছে।’

কুপার আরও বলেন, সমস্যা হলো মানুষ মোবাইল ফোনে আসক্ত হয়ে পড়ছে। তবে এ নিয়েও কুপার খুব বেশি চিন্তিত নন। তিনি বলেন, ‘নতুন প্রযুক্তির সামনে সব সময়ই চ্যালেঞ্জ থাকে। যখন প্রথম টেলিভিশন এল, তখন মানুষ আসক্ত হয়ে পড়েছিল। তবে এখন আমরা বুঝতে পেরেছি, টিভি দেখার নির্দিষ্ট সময় ও ব্যবস্থাপনা রয়েছে।’

খবর: এএফপি

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত