শিরোনাম :
ভাষা আন্দোলন থেকে বাংলার স্বাধীকার আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা

ভাষা আন্দোলন থেকে বাংলার স্বাধীকার আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা

প্রতি বছর ঘুরে বারবার আসে ২১ ফেব্রুয়ারী। মানুষের মনে জাগ্রত করে দেয় ৫২’র ভাষা আন্দোলনের কথা। ১৯৫২ সালে ভাষার মর্যাদা রাখতে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশের দামাল ছেলেরা। সেদিন ঢাকার রাজপথ রক্তে রঞ্জিত করেছিল পাক পুলিশ। সেদিন গুলি চালিয়েচিল ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ঢাকার রাজপথে বেরিয়ে এসে আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়া ছাত্র- জনতার ওপর। পুলিশের গুলিতে শহিদ হয়েছিলেন মোহাম্মদ রফিক, শফিকুর রহমান, আঃ জব্বার, বরকত উল্লাহসহ নাম না জানা আরো অনেকে। সেই থেকে ২১ এলে এ দেশে ভোর বেলা খালি পায়ে রাস্তায় নেমে আসে ছাত্র-জনতা।অংশ নেয় প্রভাত ফেরিতে। ফুল দেয় শহিদ বেদীতে। চলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ জায়গায় জায়গায় ভাষা শহীদদের স্মৃতিচারণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল।
তারই ধারাবাহিকতায় এলো ১৯৭১ সালের ২১ ফেব্রুয়ারী। আগের দিন শুনতে পেলাম মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলার নহাটা হাই স্কুল থেকে শুরু হবে ভাষা আন্দোলন উপলক্ষে মহম্মদপুর অভিমুখে ছাত্র-জনতার শোভাযাত্রা।
সকালে বাড়ি থেকে একটা কলম ও একটা খাতা নিয়ে ছুটে গেলাম নহাটা। কারো কোনো দেখা পেলাম না। জানতে পেলাম জনতার মিছিল চলে গেছে মহম্মদপুর অভিমুখে। আমি আমার বাড়ি না ঢুকে সেই পথেই রওনা দিলাম মহম্মদপুরের উদ্দেশ্যে। ছোট মানুষ কিন্তু মনে কোনে ডর নেই। শুধু আছে ক্লান্তি। বাড়িতে অভিভাবকের জবাবদিহিতা, রাস্তাঘাটের ভয় ও ক্লান্তি সব কিছুকেই সেদিন হাারিয়ে ফেলেছিলাম মন থেকে। উদ্দেশ্য একটায় গন্তব্যে পৌঁছা।
আগে কখনও মহম্মদপুর যাইনি।ছুটে চলেছি মহম্মদপুরের দিকে। এক সময় পৌঁছালাম মহম্মদপুর বাজারে। রাস্তার পাশে বিশাল মাঠ। মাঠটি লোকে লোকারণ্য। সমাবেশে চলছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের কড়া বক্তৃতা। বক্তব্য শেষে পাকিস্তানি পতাকা দুইজনে উঁচু করে ধরল আর আওয়ামী লীগ নেতা আঃ রশীদ বিশ্বাস দিয়াশলাইয়ের কাঠিতে আগুন ধরিয়ে ধরলেন পাকিস্তানি পতাকায়। দাউ দাও করে জ্বলে উঠল আগুনের লেলিহান শিখা।মুহূর্তের মধ্যে পতাকাটি পুড়ে ছাই হয়ে গেল।
পতাকা পোড়ানোর মধ্য দিয়ে শুরু হলো এ দেশে অসহযোগ আন্দোলন। যে আন্দোলন ধাপে ধাপে রূপ ন্যায় এ দেশের স্বাধীনতা আন্দোলন।
লেককঃ-সৈয়দ জাহিদুজ্জামান
                 সাংবাদিক

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত