শিরোনাম :
রাজনৈতিক অস্থিরতা ঠেকাতে ইন্টারনেট সেবা বন্ধের তালিকায় শীর্ষে ভারত

রাজনৈতিক অস্থিরতা ঠেকাতে ইন্টারনেট সেবা বন্ধের তালিকায় শীর্ষে ভারত

বিজ্ঞান ডেস্ক:  রাজনৈতিক অস্থিরতাসহ নানান কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ইন্টারনেট সেবা বন্ধ করে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কভিত্তিক ইন্টারনেট সেবা পর্যবেক্ষণ সংস্থা অ্যাক্সেস নাউ জানিয়েছে, গত বছর (২০২২ সাল) বিশ্বে সবচেয়ে বেশি ইন্টারনেট সেবা বন্ধ করেছে ভারত।

শুধু ২০২২ সালই নয়, বিশ্বে টানা পাঁচ বছরের মতো অতি জরুরি সেবা বন্ধে শীর্ষস্থানে থাকার লজ্জার রেকর্ড গড়েছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশটি।

বিশ্বব্যাপী ২০২২ সালে ১৮৭ বার ইন্টারনেট বন্ধ হওয়ার বিষয়টি নথিভুক্ত করেছে অ্যাক্সেস নাউ। যার মধ্যে ৮৪টি ছিল ভারতে। এরমধ্যে শুধুমাত্র জম্মু ও কাশ্মীরে ৪৯ বার ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করেছিল দেশটি।

এ ব্যাপারে অ্যাক্সেস নাউ এক প্রতিবেদনে বলেছে,  রাজনৈতিক অস্থিরতা এবং অস্থিতিশীলতার কারণে জম্মু এবং কাশ্মীর ৪৯ বার ইন্টারনেট বন্ধ করা হয়েছিল। যার মধ্যে ২০২২ সালের জানুয়ারি এবং ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে টানা ১৬ বার কারফিউ স্টাইলে তিনদিন করে ইন্টারনেট বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।’

২০১৯ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) জম্মু ও কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন ও বিশেষ আঞ্চলিক মর্যাদা বাতিল করে এটিকে দুটি আলাদা কেন্দ্রীয় প্রশাসনিক অঞ্চলে ভাগ করে।

এরপর থেকেই নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে জম্মু ও কাশ্মিরে অসংখ্যবার ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করা হয়েছে।

ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধে ভারত টানা পঞ্চমবারের মতো শীর্ষে অবস্থানে থাকলেও, ২০১৭ সালের পর এবারই প্রথমবারের মতো ১০০ বারের কম ইন্টারনেট বন্ধ করেছে দেশটি।

ইন্টারনেট বন্ধের দিক দিয়ে দ্বিতীয়স্থানে আছে ইউক্রেন। রাশিয়ার সেনাবাহিনী গত বছর ইউক্রেনে হামলা করার পর অন্তত ২২ বার ইন্টারনেট বন্ধ করে দিয়েছিল।

এ তালিকার তৃতীয়স্থানে আছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরান। গত বছর নৈতিকতা পুলিশের হেফাজতে মাহসা আমিনি নামের এক কুর্দি তরুণী নিহত হওয়ার পর ইরানজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। সেটি রুখতে তেহরান ২০২২ সালে ১৮ বার ইন্টারনেট সেবা বন্ধ করে দিয়েছিল। সূত্র: রয়টার্স

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত