শিরোনাম :
“প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল (পিপিএম)- সেবা” পেলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ফরহাদ সরদার সাভারে বিএনসিসির সেন্ট্রাল ক্যাম্পিংয়ের সম্মিলিত কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে অনুষ্ঠিত এম এম আমিনুল ইসলামকে আয়ারল্যান্ড প্রতিনিধি হিসাবে নিয়োগ দান  লক্ষীপুরে ডিবির জালে যৌন কর্মীসহ ৫জন আটক রক্তবন্ধু সমাজকল্যাণ সংগঠনের ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে অভিভাবক এওয়ার্ড ও গুণীজন সম্মাননা সাভার উপজেলা পরিষদ ঢাকা-১৯ এর এমপিকে সংবর্ধনা নওগাঁর পুলিশ সুপার”প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল” (পিপিএম-সেবা) প্রাপ্তি বড়াইগ্রামে জাতীয় পরিসংখ্যান দিবস পালিত  মাদক নিয়ে  ট্রেন চালক সহ গ্রেপ্তার ৫  ভোলায় রওশন আরা ও রাব্বী হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধন 
লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার বাউরা বাজারের দোকানে হামলা ও ভাঙচুর

লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার বাউরা বাজারের দোকানে হামলা ও ভাঙচুর


ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি:

লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার বাউরা বাজারে আবু সাঈদ নামে এক কাপড় দোকানদারকে গুরুতর জখম করে দোকান ভাঙচুর ও লুটপাট।

এ ঘটনায় আবু সাঈদ এর কাছে জানতে চাইলে তিনি  বলেন ১৬ ই সেপ্টেম্বর আসাদুল হাবিব দুলু আমার দোকানে আসিয়া  আমার নিকট মটরবাইক্ কেনার সুদ ও আসলসহ টাকা চায় । আহসান হাবীব লুলু আমাকে তাহার উক্ত মোটরসাইকেল গ্যারেজে নিয়া গিয়া সােরুম থেকে মােটরসাইকেল ক্রয় করে আনায় সু্দ- আসল দেওয়ার কথা বলে আমার উপর রাগান্বিত হয়ে  তার মোটরসাইকেলের গ্যারেজে  ক্রয়ের সুদের টাকা দেওয়ার জন্য আমাকে গালাগালি করার একপর্যায়ে মারমুখি হয়। বিষয়টি বাউড়া বাজারের জনৈক মােঃ সামুল আালম প্রধামানিক (৫৮) , “আলম মেশিনারীজ” এর দোকান আলাপ আলােচনার জন্য ডাকে, আমি সেখানে উক্ত তারিখ সন্ধ্যা অনুমান ০৭.২৫ ঘটিকার সময় গেলে এক পর্যায় উক্ত ঘটনার সূত্র ধরিয়া উক্ত তারিখ সন্ধ্যা অনুমান ০৭,৩০ ঘটিকার সময় আসামী আহসান সহ অন্যান্য আসামী ২। আহসানুল হক জালু (২৪) ৩। মােঃ দুলু (৩১) ০। মােকবলে (৩৮) সকলের পিতা- মােঃ মজিবর রহমান, ৫। মােঃ মজিবর রহমান (৫৮) পিতা-মৃত মহিমুদ্দিন ৪। মােঃ আলতাফ হােসেন (৫০) পিতা-মৃত জুল খলিফা ৭। মোঃ মাের্কছেদ ও মোখলেছার (৬৫) পিতা-মৃত মহিযুদ্দিন ৮। মােঃ ছাদসুল আলম ও বাবু (২৪) পিতা-মােঃ রেজাউল হক ১। মােঃ সাফিউল হক (৫০) পিতা-মৃত আনছার উদ্দিন সকলের সাং-জন্গরাম, ১০। মােঃ সামিউল (৩০) পিতা-মােঃ বদির উদ্দিন সাং-ঠানগর ০৭ নং ওয়ার্ড, সর্ব থানা পাটগ্রাম, জেলা- লালমনিরহাট জনসহ তাহাদের ভাড়াটিয়া অজ্ঞাত নামীয় ১০/১২ জন আসামী পরস্পরে যােগসাজেসে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে লাঠি-সােটা, কাপড় কটা-কাঁচি, লােহার প্রভৃতি মারাতৃৰু ধারাল দেশীয় অস্ত্র সুসজ্জিত ভাবে বে-আইনী জনতায় আসিয়া আমাকে উক্ত মেশিনারীজের এর দোকানের সামনে এই সময় আসামী মজিবর রহমান অন্যান্য সকল আসামীদের হুকুম দিয়া বলে এই শালাকে মারিয়া জানে খতম করে দিয়া দোকান লুটপাট কর, এই হুকুম পাওয়া মাত্র আসামী আহসানুল হক ডালু সহ অজ্ঞাত নামা আসামীরা আমাকে বাশের লাঠি দিয়া ভা-মার করিয়া শরীরের মধ্যে ফুলা জখম করে এবং অসামী । আমাকে স্ব জোরে ঘুষি মারিয়া নাকের মধ্যে দিয়া রক্ত ক্ষরন করে। ঐ সময় আমি প্রাণ রক্ষার্থে দৌড়াইয়া আমার হাজী বন্ত্রালয় দোকানে আসি, তখন পিছু পিছু আসামীগণ দৌড়াইয়া ঘটনাস্থল আমার কাপড়ের দোকানের সামনে আসিলে আসামী আলতাফ হোসেন এর হুকুমে অপরাপর আসামীগণ আমার দোকানে অনধিকার প্রবেশ করিয়া আসামি আমাকে আলমগীর হোসেন & দুলু হাতে থাকা লাঠি দিয়ে ডাং-মার করিয়া শরীরের মধ্যে শুরুত্বর জখম করে। আসামী আহসান হাবীক লুলু হত্যার উদ্দেশ্যে তাহার হতে পাের রেঞ্জ দিয়ে আমাকে মাথায় আঘাত করিলে উক্ত রেঞ্জের আঘাত মাথায় লাগিয়া মারাতুক জখম প্রাপ্ত হয়। আসামী আলতাফ হােসেন তাহার হাতে কাপড় কাটা কাচি দিয়ে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মার-পিট, খােচা দিয়ে মার পিট করিয়া আমার বাম চোখের নিচে লেগে মারাতুক জখম হয়। আসামীগণ আমাকে মার পিট করিতে থাকিলে এই সুযােগে আসামী রুবেল, মজিবর রহমান একপর্যায়ে আমার দােকানের ক্যাশ বাক্সের মধ্যে রক্ষিত ২,১৭,০০০/= টাকা এবং আসামী ভালু, লুল, আলতাফ হোসেন, সাফিউলগণেসহ অজ্ঞাতনামা আসামীর আমার দোকানের দামী সেরওয়ানী ১১টি-প্রতিটি ২২০০/= টাকা করে মােট ২৪,২০০/ টাকা, বিয়ের শাড়ী २টি প্রতিটি ৩০০০/= টাকা করে মােট ৮৪,০০০/= টাকা, প্যান্ট পিছ ৩টি প্রতিটি ৭০০/= টাকা দরে মােট ২৪,৫০০/= টাকা, সার্ট পিছ ৪০টি প্রতিটি ৫৫০= টাকা দরে মােট ২২,০০০/= টাকা সর্ব মােট ১,৫৪,৭০০/= টাকা নিয়া যায়। যাওয়ার সময় আমার উক্ত দোকানে আসামীগণ ভাংচুর করে ক্ষতি সাধন করে এবং দোকানের মধ্যে ক্যাশে রক্ষিত ২,১৭,০০০/= টাকা বাহির করিয়া নিয়া মালামাল লুটপাটের সময় বাউড়া বাজারের লােকজন ও স্বাক্ষী ১। মােঃ হারুন-অর-রশিদ (৩২) পিতা-আবুল কালাম ২। মােঃ সাদিকুল ইসলাম (৩৫) পিতা-মৃত রহিম উদ্দিন ৩। মােঃ মিয়া (২৮) পিতা-মােঃ আজিজুল হক ৪। মানিক রায় (৩৫) পিতা-মৃত চার চন্দ্র ৫। মেঃ মােস্তাক আহমেদ (৩৮) পিতা-মৃত মােসলেম উদ্দিন ৬। মােঃ মংলু মিয়া (৪৫) পিতা-মৃত কাশেম আলী ৭। মােঃ মুকুল হক (৫৫) পিতা-মৃত মহিমুদ্দিন সকলের সাং-নবীনগর, বাউড়া বাজার, থানা- পাটগ্রাম, জেলা- লালমনিরহাট গণ সহ আরও অনেকে যাহরা আসামীগণের হাত থেকে আমাকে উদ্ধারের পর বাউড়া বাজার পল্লী চিকিৎসক কর্তৃক প্রাথমিক চিকিত্সার ব্যবস্থা করায়। আসামীগণ আমার দোক্ষান তার ও লুটপাট করিয়া দিয়া অনুমান ৭০,০০০/=টাকা অনিষ্টতা সাধন করে ও ঘটনাস্থল থেকে যাবর প্রাক্কালে আজ তাদের হাত থেকে জানে বাচিয়া গেলেও সুযােগমত খরিয়া প্রাণ নাশের হুমকি প্রধান করে। আমার কাপড়ের দোকান চোর, ডাকাত লাগাইয়া দিয়া ক্ষতি করিবে প্রভৃতি হুমকি প্রদান করে।এ ব্যাপারে পাটগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ সুমন কুমার মহন্তের সাথে কথা হলে তিনি বলেন অভিযোগের কপি পেয়েছি    তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে   ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত