২৯ আগস্ট নাসার দানব রকেট ’মুন’ মহাকাশে যাত্রা শুরু করবে

২৯ আগস্ট নাসার দানব রকেট ’মুন’ মহাকাশে যাত্রা শুরু করবে

বিজ্ঞান ডেস্ক: নাসার বিশাল মহাকাশ লঞ্চ সিস্টেম মুন রকেট শীর্ষ একটি আনক্রুড মহাকাশচারী ক্যাপসুল। চলতি মাসে বেহেমথের প্রথম পরীক্ষামূলক ফ্লাইটের আগে মঙ্গলবার রাতে লঞ্চপ্যাডে ঘণ্টাব্যাপী ক্রল শুরু করেছে।

৩২২ ফুট লম্বা (৯৮ মিটার) রকেটটি আগামী ২৯ আগস্ট কোনো মানুষ ছাড়াই মহাকাশে প্রথম মিশনে যাত্রা করবে। এটি নাসার আর্টেমিস প্রোগ্রামের জন্য চাঁদে একটি গুরুত্বপূর্ণ, দীর্ঘ বিলম্বিত প্রদর্শনী ট্রিপ হবে। মঙ্গল গ্রহে ভবিষ্যত মানুষকে চন্দ্রপৃষ্ঠে ফিরিয়ে আনার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বহু বিলিয়ন ডলারের প্রচেষ্টা হিসাবে মিশন।

স্পেস লঞ্চ সিস্টেম গত দশকে বোয়িং কো (বিএএন) দ্বারা পরিচালিত হয়েছে। ফ্লোরিডায় নাসার কেনেডি স্পেস সেন্টারে তার এসেম্বলি বিল্ডিং থেকে রাত ১০টার দিকে আবির্ভূত হয়। মঙ্গলবার ইডিটি এবং লঞ্চপ্যাডের জন্য চার-মাইল যাত্রা শুরু করে। ঘণ্টায় ১ এমপিএইচ এর চেয়ে কম গতিতে চলমান এটির  রোলআউটে প্রায় ১১ ঘণ্টা সময় লাগবে।

রকেটটির উপরে বসে আছে নাসার ওরিয়ন মহাকাশচারী ক্যাপসুল, যেটি লকহিড মার্টিন কর্প দ্বারা নির্মিত। এটিকে মহাকাশে রকেট থেকে আলাদা করার জন্য, চাঁদের দিকে মানুষকে ফেরি করার জন্য এবং একটি পৃথক মহাকাশযানের সঙ্গে মিলিত হওয়ার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। যা মহাকাশচারীদের চন্দ্র পৃষ্ঠে নিয়ে যাবে।

২৯ আগস্ট মিশনের জন্য আর্টেমিস-১ নামে পরিচিত ওরিয়ন ক্যাপসুলটি স্পেস লঞ্চ সিস্টেমের উপরে কোনো মানুষ ছাড়াই উৎক্ষেপণ করা হবে। এটি ৪২ দিন পরে একটি মহাসাগর স্প্ল্যাশডাউনের জন্য পৃথিবীতে ফিরে আসার আগে চাঁদকে প্রদক্ষিণ করবে।

এদিকে, খারাপ আবহাওয়া ও এটির প্রযুক্তিগত সমস্যা দেখা দেয় তাহলে ন্যাশনাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন উৎক্ষেপণের জন্য ২ ও ৫ সেপ্টেম্বর তারিখও ব্যাকআপ হিসাবে রাখা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




কপিরাইট © ২০২১ || দি ডেইলি আজকের আলোকিত সকাল - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত